শিরোনাম
প্রচ্ছদ / জাতীয় / আন্তঃসীমান্ত যোগাযোগ উন্নয়নরে প্রকল্পে সায়

আন্তঃসীমান্ত যোগাযোগ উন্নয়নরে প্রকল্পে সায়

আন্তঃসীমান্ত যোগাযোগ উন্নয়নরে প্রকল্পে সায়
আঞ্চলকি বাণজ্যি তরান্বতি করতে সীমান্তর্বতী পাঁচ জলোর সড়ক উন্নয়ন, সতেু নর্মিাণ ও অবকাঠামো উন্নয়নরে একটি প্রকল্পে সায় দয়িছেে জাতীয় র্অথনতৈকি পরষিদরে নর্বিাহী কমটি।ি
‘ক্রস র্বডার রোড নটেওর্য়াক ইম্প্রুভমন্টে প্রজক্টে (বাংলাদশে)’ র্শীষক এই প্রকল্প বাস্তবায়তি হলে এশয়িা প্যাসফিকি করডিোররে আঞ্চলকি বাণজ্যিরে সুযোগ প্রসারতি হবে বলে মনে করনে পরকিল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।
মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী শখে হাসনিার সভাপতত্বিে সভায় এ প্রকল্পটসিহ মোট নয়টি উন্নয়ন প্রকল্প অনুমোদন দওেয়া হয়।
প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়ছেে ৬ হাজার ১০০ কোটি টাকা।
এরমধ্যে ৩ হাজার ৪০১ কোটি টাকা প্রকল্প সাহায্য ১৫৫ কোটি টাকা সংস্থার নজিস্ব র্অথায়ন এবং বাকি ২ হাজার ৫৪৩ কোটি ৫০ লাখ টাকার যোগান দওেয়া হবে সরকাররে নজিস্ব তহবলি থকে।ে
শরেে বাংলা নগররে এনইসি সম্মলেনকক্ষে ওই বঠৈক শষেে পরকিল্পনামন্ত্রী বলনে, “সাম্প্রতকি সময়ে দক্ষণি এশয়িা অঞ্চলে র্অথনতৈকি নীতমিালার উদারকিরণ প্রক্রয়িা শুরু হওয়ায় বাংলাদশে এবং ভারতরে মধ্যে উচ্চ সম্ভাবনাময় র্অথনতৈকি অঞ্চল তরৈরি সুযোগ সৃষ্টি হয়ছে।ে
“এছাড়াও নপোল, ময়িানমার, ভুটানরে মাঝামাঝি হওয়ায় দশেগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনরে মাধ্যমে বাণজ্যিকি সর্ম্পক সম্প্রসারণরে অফুরান সম্ভাবনা রয়ছে।ে এ সম্ভাবনাকে বাস্তব রূপ দতিে সরকার ক্রস র্বডার রোড নটেওর্য়াক ইম্প্রুভমন্টে প্রজক্টে (বাংলাদশে) বাস্তবায়নরে উদ্যোগ নয়িছে।ে”
প্রকল্পটরি মোট ব্যয় ধরা হয়ছেে ২ হাজার ৪৭৩ কোটি টাকা। এরমধ্যে প্রায় ১ হাজার ৮৫২ কোটি টাকা জাইকা দবে,ে বাকি ৬২১ কোটি টাকার যোগান দওেয়া হবে সরকাররে নজিস্ব তহবলি থকে।ে
মন্ত্রী বলনে, “বাংলাদশেরে অবস্থান ভারত, নপোল, ময়িানমার এবং ভুটানরে মাঝামাঝি হওয়ায় এই দশেগুলরি মধ্যে যোগাযোগ রক্ষায় বাংলাদশেরে ভূমকিাও অত্যন্ত গুরুত্বর্পূণ।
“অথচ কাস্টমস ও সীমান্ত ব্যবস্থাপনায় অর্পযাপ্ত সুবধিা ব্যবস্থার কারণে অভ্যন্তরীণ এবং সীমান্ত এলাকার জরার্জীণ রাস্তা ও সতেুর দুরাবস্থার জন্য আর্ন্তজাতকি সড়কগুলতিে সঠকিভাবে চলাচল সম্ভব হয় না। সজেন্যই এই অঞ্চলরে বভিন্নি প্রতষ্ঠিানরে সমন্বতি প্রয়াসরে মাধ্যমে আঞ্চলকি ট্রানজটি যানবাহন চলাচলরে পরকিল্পনা করা হয়ছেে এবং বভিন্নি স্থায়ী অস্থায়ী অবকাঠামোর উন্নয়ন ও সংরক্ষণ প্রক্রয়িাধীন রয়ছে।ে”
বঠৈকে অনুমোদন পাওয়া অন্য প্রকল্পরে মধ্যে রয়ছে,ে ‘দনিাজপুর-চরিরিবন্দর-র্পাবতীপুরসড়ক প্রশস্তকরণ’ প্রকল্প, যার ব্যয় ধরা হয়ছেে ৪৫ কোটি ২৭ লাখ টাকা।
‘আমনি বাজার-মাওয়া-মংলা ৪০০ কভেি সঞ্চালন লাইন’ প্রকল্প, ব্যয় ধরা হয়ছেে ১ হাজার ৩৫৬ কোটি ৫৯ লাক টাকা।
‘ঢাকাস্থ শরেে বাংলা নগরে বাংলাদশে স্থলবন্দর র্কতৃপক্ষরে প্রধান র্কায়ালয় ভবন নর্মিাণ’ প্রকল্প, ব্যয় ৩৪ কোটি ৫০ লাখ টাকা;
‘পানি ভবন নর্মিাণ’ প্রকল্প, ব্যয় ধরা হয়ছেে ২১০ কোটি ৯৪ লাখ ১৩ হাজার টাকা।
‘ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বশ্বিবদ্যিালয়রে অধকিতর উন্নয়ন’ প্রকল্প, এর ব্যয় ২৭৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা; ‘কশিোরগঞ্জ জলোয় গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন’ প্রকল্প, ব্যয় ধরা হয়ছেে ৩৪৭ কোটি ২৪ লাখ টাকা।
‘নদী তীর সংরক্ষণরে মাধ্যমে মঘেনা নদীর ভাঙ্গন হতে ভোলা জলোর তজুমুদ্দনি উপজলো সদর সংরক্ষণ’ প্রকল্প, ব্যয় ধরা হয়ছেে ৪৪৯ কোটি ৩৯ লাখ টাকা এবং ‘বাংলাদশে র্অথনতৈকি অঞ্চল উন্নয়ন প্রকল্প- ১ম র্পযায়’ প্রকল্প, যার জন্য খরচ ধরা হয়ছেে ৯০৫ কোটি ৩২ লাখ টাকা।

পড়ে দেখুন

অধিক শস্য ফলনের জন্য বিদ্যুৎ ব্যবহারে সবাইকে সাশ্রয়ী হবার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

॥ ডেস্ক রিপোর্ট ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হবার পাশাপাশি সকলকে সঞ্চয় করার …