শিরোনাম
প্রচ্ছদ / বিনোদন / যৌথ প্রযোজনায় রুবাইয়াত হোসেন

যৌথ প্রযোজনায় রুবাইয়াত হোসেন

যৌথ প্রযোজনায় রুবাইয়াত হোসেন

বিনোদন ডেস্ক | ‘মেহেরজান’ ও ‘আন্ডার কনস্ট্রাকশন’-এর পর নিজের তৃতীয় ছবির চিত্রনাট্যের কাজে হাত দিয়েছেন রুবাইয়াত হোসেন। এটি তৈরি হবে বাংলাদেশ ও ফ্রান্সের যৌথ প্রযোজনায়। বাংলাদেশের প্রযোজনা সংস্থা খনা টকিজ এ খবর দিয়েছে।

এদিকে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের ৪৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গত ১৮ এপ্রিল ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে ‘সম্পদ সম্পত্তিতে সমান অধিকার নারীর ক্ষমতায়ন ও স্থায়িত্বশীল উন্নয়নের পূর্বশর্ত’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে সম্মাননা পেয়েছেন রুবাইয়াত।

এ আয়োজনে বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত ২৮ নারীকে সম্মাননা দেওয়া হয়। চলচ্চিত্রে অবদান রাখার জন্য এই সম্মান পেলেন রুবাইয়াত হোসেন। সংগঠনের সভাপতি আয়শা খানমের সভাপতিত্বে তার হাতে ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট তুলে দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন নরওয়ের রাষ্ট্রদূত মিজ মেরেতো লুনডেমো।

দেশের বাইরে থাকায় রুবাইয়াত হোসেন অনুষ্ঠানে অংশ নিতে না পারলেও তিনি তার অভিব্যক্তি প্রকাশ করে বলেন, ‘একজন নারী নির্মাতা হিসেবে চলচ্চিত্রে ভূমিকা রাখার জন্য আমাকে সম্মাননা দেওয়ায় বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের কাছে আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞতা জানাই। বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দেশের সবচেয়ে প্রাচীন ও শীর্ষস্থানীয় নারী অধিকার সংগঠন। ব্যক্তিগতভাবে আমি নিজেও নারী অধিকার বিষয়ে সক্রিয়, তাই এই সম্মান ও স্বীকৃতি আমার জন্য অত্যন্ত আনন্দের ও সম্মানের। নারী নির্মাতা হিসেবে এটি আমার যাত্রাকে অব্যাহত রাখতে অনুপ্রাণিত করবে।’

প্যারিসের গিমে মিউজিয়ামে সম্প্রতি ‘আন্ডার কন্সট্রাকশন’-এর বিশেষ প্রদর্শনীর মাধ্যমে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানানো হয় পরিচালক রুবাইয়াত হোসেন ও ছবিটির অভিনেত্রী শাহানা গোস্বামীকে। প্রদর্শনী শেষে দুই ঘণ্টা প্রশ্নোত্তর পর্বে অংশ নেয় ফ্রান্সের চলচ্চিত্র ও সংস্কৃতি জগতের অনেক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি। ফ্রান্সে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এম শহিদুল ইসলামও ছবিটি উপভোগ করেন এবং প্রশ্নোত্তর পর্বে তিনি দর্শকদের কিছু প্রশ্নের উত্তর দেন।

১৮৭৯ সালে প্রতিষ্ঠিত গিমে মিউজিয়াম এশিয়ার বাইরে এশীয় শিল্পের বৃহত্তম সংগ্রহশালা। গিমে মিউজিয়াম এশীয় সংস্কৃতির প্রতিনিধিত্বকারী গুরুত্বপূর্ণ ব্যাক্তিদের চিহ্নিত ও সম্মানিত করে এবং চলচ্চিত্রের ক্ষেত্রে তারা সিনেমার মান ও এতে উপস্থাপিত সাংস্কৃতিক দৃষ্টিকোণকে বিবেচনায় রেখে প্রতি বছর একজন এশীয় চলচ্চিত্র পরিচালককে এমিলি গিমে পুরস্কার প্রদান করে। এ বছর পুরস্কারটি অর্জন করেছেন রুবাইয়াত হোসেন। গত ফেব্রুয়ারিতে ফ্রান্সের ভেস্যুল এশীয় চলচ্চিত্র উৎসবে তার হাতে এই পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়।

পড়ে দেখুন

বান্দরবানের বন্ধ সকল পর্যটনকেন্দ্র: ক্ষতির মুখে ব্যবসায়ীরা

॥রাহুল বড়–য়া ছোটন, বান্দরবান ॥ যেকোন সরকারি বন্ধে, পূজা ও ঈদের ছুটিতে পার্বত্য জেলা বান্দরবানের …