শিরোনাম
প্রচ্ছদ / খাগড়াছড়ি / খাগড়াছড়িতে ‘সমকাল-বিএফএফ’ স্কুল ভিত্তিকবিজ্ঞান বিতর্ক প্রতিযোগিতা

খাগড়াছড়িতে ‘সমকাল-বিএফএফ’ স্কুল ভিত্তিকবিজ্ঞান বিতর্ক প্রতিযোগিতা

খাগড়াছড়িতে ‘সমকাল-বিএফএফ’ স্কুল ভিত্তিকবিজ্ঞান বিতর্ক প্রতিযোগিতা

॥ লিটন ভট্টাচার্য্য রানা, খাগড়াছড়ি ॥
সারাদেশের মতো শনিবার খাগড়াছড়ি জেলাশহরে অনুষ্ঠিত হয়েছে দিনব্যাপী ‘সমকাল-বিএফএফ’ স্কুলভিত্তিক বিজ্ঞান বিতর্ক প্রতিযোগিতা। এতে জেলার ৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ২৪ জন ক্ষুদে বিতার্কিক অংশ নিয়েছে।
নতুনকুঁড়ি ক্যান্ট: হাইস্কুল’র অডিটোরিয়ামে আয়োজিত এই প্রতিযোগিতায় তর্কযুদ্ধে অবত্তীর্ন হয়েছে মাটিরাঙ্গা মডেল হাই স্কুল, নতুনকুঁড়ি ক্যান্ট: হাই স্কুল, কমলছড়ি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, মাটিরাঙ্গা ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসা, পেরাছড়া উচ্চ বিদ্যালয়, মাটিরাঙ্গা শান্তিপুর উচ্চ বিদ্যালয়, টিউফা আইডিয়াল হাই স্কুল এবং মাটিরাঙ্গা মিউনিসিপ্যাল হাই স্কুল।
সকাল ৯টায় ‘তর্কে-বিতর্কে বিজ্ঞানের সাথে’ শ্লোগানে চতুর্থবারের এই আসরের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন, তরুণ রাজনীতিক ও পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু।
উদ্বোধনী বক্তব্যে তিনি বলেন, দেশ-জাতির সঠিক ইতিহাস, ভাষা-সংস্কৃতি ও দর্শনগত নির্মিতির প্রকৃত উৎস জানার জন্য বিতর্কের অবদান অপরিসীম। একটি বিকশিত যুক্তিনির্ভর প্রজন্ম সৃষ্টির লক্ষ্যে সমকাল-বিবিএফ বিতর্ক প্রতিযোগিতা খাগড়াছড়িতে শিক্ষার্থীদের সৃজনশীলতা বিকাশে অনেক কার্যকর ভূমিকা রাখবে বলেও তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
তিনি আরো বলেন, আগামীতে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে প্রতিবছর স্কুল-মাদ্রাসা ও কলেজ ভিত্তিক একটি বিতর্ক উৎসব আয়োজনে প্রয়োজনীয় সব ধরনের সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দেন।
এসময় নতুনকুঁড়ি’র সহকারী প্রধান শিক্ষক রুশদীনা আখতার জাহান, খাগড়াছড়ি প্রেসক্লাবের সা: সম্পাদক আবু তাহের মুহাম্মদ, মাটিরাঙ্গা মডেল হাই স্কুলের শিক্ষক মো: ইদ্রিস ও সমকাল প্রতিনিধি প্রদীপ চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।
দুপুর ২টার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, খাগড়াছড়ির অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এটিএম কাউছার হোসেন।
বিশেষ অতিথি ছিলেন মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিএম মশিউর রহমান ও প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতি মো: জহুরুল আলম।
সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এটিএম কাউছার হোসেন বলেন, বিজ্ঞান চর্চার প্রতি এখনকার শিশু-কিশোর এবং শিক্ষার্থীদের মনোযোগ কমে যাবার মূলেই রয়েছে বিতর্ক, উপস্থিত বক্তৃতা এবং সহ-পাঠক্রমিক কার্যক্রমের অনুপস্থিতি। প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সরকারী-বেসরকারী উদ্যোগে সৃজনশীল প্রতিযোগিতা বাড়ানো গেলে দেশে প্রতিটি শিক্ষার্থীর সুপ্ত মেধার যথাযথ বর্হিপ্রকাশ ঘটবে।
চুড়ান্ত পর্বে নতুনকুঁড়ি ক্যান্ট: হাই স্কুল, চ্যাম্পিয়ন  এবং মাটিরাঙ্গা শান্তিপুর উচ্চ বিদ্যালয়, রানার্স-আপ নির্বাচিত হয়। শ্রেষ্ট বিতার্কিক নির্বাচিত হন, নতুনকুঁড়ি ক্যান্ট: হাই স্কুলের বিতার্কিক সুরাইয়া লিয়াকত এলি।
দিনভর বিতর্ক প্রতিযোগিতায় মডারেটরের ভূমিকা পালন করেন, খাগড়াছড়ি ডিবেটিং ফোরামের সভাপতি অধ্যাপক দুলাল হোসেন ও মাটিরাঙ্গা শান্তিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক মো: রফিকুল ইসলাম।
বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন রওশন জাহান সাথী, মনিরুল ইসলাম, হরিপদ দেবনাথ, সাইফুদ্দিন মিঠু ও নুরচ্ছাফা মানিক।
চ্যাম্পিয়ন দলের বিতার্কিকরা হলেন, নতুনকুঁড়ি’র যথাক্রমে আশফাকুল ইসলাম, শারমিন শাহজাদী ও সুরাইয়া রিয়াকত এলি।
রানার্স-আপ দলের বিতার্কিকরা হলেন মাটিরাঙ্গা শান্তিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ফারজানা ইসলাম রুবি, সালমা আক্তার ও সুমাইয়া আক্তার বিজয়।

পড়ে দেখুন

খাগড়াছড়িতে কালবৈশাখী ঝড়ে বিভিন্ন স্থানে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি, যোগাযোগ ছিলো বন্ধ, বিদ্যুৎ ছিলো না ৫ ঘন্টা

॥ খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি ॥ খাগড়াছড়িতে মাত্র এক মিনিটের কালবৈশাখী ঝড়। তাতেই বিভিন্ন স্থানে বৈদ্যুতিক পোল …