শিরোনাম
প্রচ্ছদ / রাঙ্গামাটি / সেনা অভিযানে রাঙ্গামাটিতে শীর্ষ সন্ত্রাসী আটক, অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার

সেনা অভিযানে রাঙ্গামাটিতে শীর্ষ সন্ত্রাসী আটক, অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার

সেনাবাহিনীর বিশেষ অভিযানে রাঙ্গামাটির রানীরহাটস্থ গাবতল এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী বখতেয়ার বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ড মোদাচ্ছেরকে বেশ কয়েকটি অস্ত্র ও গোলা বারুদসহ আটক করা হয়েছে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার ভোররাতে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে মোদাচ্ছেরকে আটকের পাশাপাশি তার স্বীকারোক্তি অনুসারে বিদেশে তৈরি একটি শাটারগান, একটি শটগান ও একটি এলজিসহ অন্তত ৫৫ রাউন্ড তাজাগুলি উদ্ধার করে রাঙ্গামাটিস্থ সেনাবাহিনীর ১৬ বীরের সেনা সদস্যরা।
রাঙ্গামাটি রিজিয়নের ১৬ বীরের সদর জোন কমান্ডার লেপ্টেনেন্ট কর্ণেল সামস এর নেতৃত্বে এই অভিযান পরিচালনা করা হয়। আটককৃত মোদাচ্ছের রানীরহাট এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী বখতেয়ার বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ড এবং অস্ত্র রাখার ষ্টোর কিপার হিসেবে পরিচিত বলে জানিয়েছে এলাকাবাসী।
সেনাবাহিনীর ১৬ বীরের পক্ষ থেকে জানানো হয়, পাহাড়ি এলাকায় অস্ত্রের মজুদ করছে এবং বেপরোয়াভাবে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পরিচালনা করছে একটি সন্ত্রাসী বাহিনী। এমন সংবাদের ভিত্তিতে গভীর রাতে সেনাবাহিনী অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানে তিন তলা বিল্ডিংয়ের দেয়াল বেয়ে উপরে উঠে ১৬ বীরের জোন কমান্ডার লে: কর্ণেল সামস নিজেই হাতে নাতে ধরে ফেলেন মোদাচ্ছেরকে।
পরে মোদাচ্ছেরের স্বীকারোক্তি অনুসারে তার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তিনটি অত্যাধুনিক অস্ত্রসহ বিভিন্ন অস্ত্রের মোট ৫৫ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। এসময় তার বাড়ির ছাদে প্রচুর পরিমাণে বিদেশী মদের বোতল ও বিয়ারের খালি ক্যান পড়ে থাকতে দেখা যায়। যা থেকে সহজেই অনুমেয় করা যায় যে, মোদাচ্ছেরের বাড়িতে প্রতিদিনই আড্ডায় মেতে উঠতো সন্ত্রাসীরা। পরে তাকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে রাঙ্গুনিয়া থানা পুলিশের নিকট হস্তান্তর করেছে বলে সেনা সূত্রে জানাগেছে।
আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জেলায় সন্ত্রাসী কর্মকান্ড বৃদ্ধির প্রবণতারোধে মে মাসের শুরু থেকে গত কয়েকদিনে রাঙ্গামাটি জেলায় বিশেষ অভিযানে সাজাপ্রাপ্ত আসামীসহ মাদক ব্যবসায়ি, মাদকসেবী ও বিভিন্ন অপরাধের সাথে জড়িত অন্তত ৪০ জনকে গ্রেফতার করেছে রাঙ্গামাটির পুলিশ বাহিনী।
অন্যদিকে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে অপারেশন উত্তরনের আওতায় এবার মাঠে নামলো সেনাবাহিনী। রাঙ্গামাটি সেনা রিজিয়নস্থ সদর জোনের জোন কমান্ডার লেপ্টেনেন্ট কর্ণেল সামস এর নেতৃত্বে পরিচালিত অভিযানের প্রথমদিনেই একজন শীর্ষ সন্ত্রাসীকে আটকের পাশাপাশি উদ্ধার করা হয়েছে আমেরিকার তৈরি দুইটি (শটগান ও এলজি) ও তুরস্কের তৈরি একটি (শাটার গান) অত্যাধুনিক অস্ত্রসহ সর্বমোট ৫৫ রাউন্ড তাজা গুলি।
সুত্র জানায়, আটককৃত মোদাচ্ছের ও তার গডফাদার পলাতক শীর্ষ সন্ত্রাসী বখতেয়ার এর নেতৃত্বে একটি সন্ত্রাসী বাহিনী দীর্ঘদিন ধরেই রাঙ্গামাটির কয়েকটি এলাকাসহ রাঙ্গুনিয়ার রানীরহাট, গাবতলী, ইসলামপুর, রাজানগর, বগাবিল এলাকায় প্রতিদিন চাঁদাবাজিসহ নানা ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালাতো। এদের অত্যাচারে অতিষ্ট্য হয়ে উঠেছে স্থানীয় জনসাধারণ। অত্যাচারে টিকতে নাপেরে উক্ত এলাকাগুলোর বেশ কয়েকজন ব্যবসায়ি বর্তমানে রাঙ্গামাটি শহরে বাসা ভাড়া নিয়ে বাস করছেন। স্থানীয়দের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে গোপনে সংবাদ সংগ্রহ করেই বুধবার ভোর রাতে অভিযান পরিচালনা করে ১৬ বীরের সদর সেনা জোন কর্তৃপক্ষ।

পড়ে দেখুন

রাঙ্গামাটিতে কর্মরত সাংবাদিকদের নিয়ে বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের প্রশিক্ষণ কর্মশালা : সারা দেশের সাংবাদিকদের জন্য একটা ডাটাবেজ তৈরি হচ্ছে–প্রেস কাউন্সিল চেয়ারম্যান

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ সারা দেশের সাংবাদিকদের জন্য একটা ডাটাবেজ তৈরি হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন …