শিরোনাম
প্রচ্ছদ / অর্থনীতি / মূল্যস্ফীতি ৫.৮ শতাংশে নামানোর আশা

মূল্যস্ফীতি ৫.৮ শতাংশে নামানোর আশা

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে ২০১৬-১৭ অর্থবছরের জন্য প্রায় সাড়ে ৩ লাখ কোটি টাকার এই বাজেট প্রস্তাব করেন তিনি।
বিদায়ী ২০১৫-১৬ অর্থবছরে অর্থনীতির অন্যতম প্রধান এই সূচক ৬ দশমিক ২ শতাংশে নামিয়ে আনার ঘোষণা দিয়েছিলেন মুহিত।
বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) সর্বশেষ তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, এপ্রিল শেষে এই হার দাঁড়িয়েছে তারও কম, ৬ দশমিক ০৪ শতাংশ।
আর মাসওয়ারি, অর্থাৎ পয়েন্ট-টু-পয়েন্ট ভিত্তিতে এপ্রিল মাসে মূল্যস্ফীতির হার ছিল ৫ দশমিক ৬১ শতাংশ।
নতুন বাজেটে এই মূল্যস্ফীতি ৬ শতাংশেরও নিচে ৫ দশমিক ৮ শতাংশে নামিয়ে আনার লক্ষ্য ধরেছেন টানা অষ্টমবার জাতীয় বাজেট প্রস্তাবকারী মুহিত।
আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কম থাকায় বাজেটে মূল্যস্ফীতি নিয়ে অনেকটাই স্বস্তিতে আছেন বলে জানিয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী। বাজেট বক্তৃতায় তিনি মুহিত বলেন, আগামী বছরে আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলসহ পণ্যমূল্য কমার সম্ভাবনা রয়েছে। ইতোমধ্যে অভ্যন্তরীণ বাজারে জ্বালানি তেলের মূল্য কিছুটা কমানো হয়েছে, যা খাদ্যবহির্ভূত মূল্যস্ফীতি হ্রাসে ভূমিকা রাখবে।
“জ্বালানি তেলের মূল্যে নিম্নমুখী সমন্বয়ের কাজটি অব্যাহত রয়েছে। অন্যদিকে কৃষিতে ধারাবাহিক প্রবৃদ্ধির সম্ভাবনা ও অভ্যন্তরীণ সরবরাহ পরিস্থিতির ধারাবাহিক উন্নয়ন খাদ্য মূল্যস্ফীতি সহনীয় পর্যায়ে রাখবে,” আশাবাদ ঝড়ে তার কণ্ঠে।
পাশাপাশি সামষ্টিক অর্থনৈতিক ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে রাজস্ব ও মুদ্রানীতির সমন্বয় সাধন করে ৫ দশমিক ৮ শতংশ মূল্যস্ফীতির লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করেছেন বলে জানান মুহিত।

পড়ে দেখুন

অধিক শস্য ফলনের জন্য বিদ্যুৎ ব্যবহারে সবাইকে সাশ্রয়ী হবার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

॥ ডেস্ক রিপোর্ট ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হবার পাশাপাশি সকলকে সঞ্চয় করার …