শিরোনাম
প্রচ্ছদ / জাতীয় / রাঙ্গামাটির পাহাড়ি গ্রামে টিউবওয়েলের পাইপ দিয়ে নির্গত হচ্ছে গ্যাস, ৫ দিন ধরে জ্বলছে আগুন

রাঙ্গামাটির পাহাড়ি গ্রামে টিউবওয়েলের পাইপ দিয়ে নির্গত হচ্ছে গ্যাস, ৫ দিন ধরে জ্বলছে আগুন

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ রাঙ্গামাটির সাপছড়ি ইউনিয়নের যৌথ খামার পাড়া নামক এক পাহাড়ি গ্রামে ডিপ টিউবওয়েলের পাইপ দিয়ে গ্যাস নির্গত হচ্ছে। গত ৫দিন ধরে পাইপ দিয়ে বের হয়ে আসা গ্যাসে জ্বলছে আগুন। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর মাঝে ব্যাপক কৌতুহলের সৃষ্টি করেছে।
স্থানীয়রা জানান, রাঙ্গামাটি সদর উপজেলাধীন সাপছড়ি ইউনিয়নের দুই নং ওয়ার্ডের যৌথ খামার এলাকার জনৈক টিটিশন চাকমার বসতভিটার সামনে গ্রামের মানুষের খাবার পানির সংকট নিরসনের জন্য রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে একটি ডিপ টিউবওয়েল স্থাপনের কাজ চলছিলো। টিউবওয়েলের পাইপ কয়েকশ ফিট গভীরে যাওয়ার পর মাটির থেকে গ্যাস বের হয়ে আসতে দেখে স্থানীরা। আর বের হয়ে আসা গ্যাসে আগুন দেয়া হলে সাথে সাথে তা জ্বলে উঠে।
সরেজমিনে উক্ত স্থানে গিয়ে দেখা গেছে, গত পাঁচদিন ধরেই টিউবওয়েল এর পানির সাথে অনবরত গ্যাস বের হয়ে আসছে। স্থানীয় বসবাসকারীরা উক্ত স্থানে প্লাষ্টিকের পাইপ ঢুকিয়ে বসতবাড়িসহ চায়ের দোকানের রান্নার কাজে ব্যবহার করছে প্রাকৃতিক এই গ্যাস।
সাপছড়ি ৩নং ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড মেম্বার রিটন বড়ুয়া জানান, এলাকার বাসিন্দাদের মাধ্যমে খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে ছুটে যাই। ওই এলাকায় জেলা পরিষদের মাধ্যমে পানি সমস্যা নিরসনে একটি ডিপ টিউবওয়েল বসানোর কাজ চলছিলো। টিউবওয়েল কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে এসে পাইপ জোড়া লাগানোর সময় গ্যাসের গন্ধের মতো কিছু একটা গন্ধ বের হতে থাকে পাইপ দিয়ে। এসময় দিয়াশলাই জ্বালালে হঠাৎ আগুন ধরে যায়। তখনি ব্যাপারটি সবার নজরে আসে। এ বিষয়টি আমি রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসনকে অবহিত করি।
তিনি বলেন, আমরা সাধারণ জনগণ এ ব্যাপারে কিছু বলতে পারছি না। তবে প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি ঘটনাস্থলে এসে পরিক্ষার করে দেখুক গ্যাস নাকি অন্যকিছু। তিনি আর আরও জানান, বর্তমানে এলাকাবাসী আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে।
এলাকায় বসবাসরত এলাকাবাসীরা জানান, টিউবওয়েলের পাইপ বোরিং করার সময় কয়েকশ ফিট নিচে যাওয়ার পর প্রথমে নিজে নিজে পানি বের হতে থাকে। পানির চাপ বাড়ার সাথে সাথে ঐ পাইপ দিয়ে গ্যাস জাতীয় বাতাস বের হতে থাকে। এ সময় পাইপ জোড়া দেওয়ার জন্য আগুন ধরালে তাতে আগুন ধরে যায়।
ডিপ টিউবওয়েল স্থাপনকারী মিস্ত্রী সারোয়ার জানান, জেলা পরিষদ থেকে দেওয়া এ ডিপ টিউবওয়েলটি বরাদ্দ দেওয়া হলেও ভূ-পৃষ্ট থেকে অন্তত ৬শ ফুট নিচে অবস্থিত প্রাকৃতিক পাথর মিশ্রিত হওয়ায় টিউওয়লটি স্থাপনে আট মাস সময় লেগে যায়। উক্ত সময়ের মধ্যে আমার ৪৬০ ফুট বেরিং করার পর ফিল্টার ড্রপ করার সময় কয়েকটি নিপিল আগুন দিয়ে জোড়া লাগার সময় আকষ্মিৎ ভাবে দাউ দাউ করে আগুন জ্বলে উঠে। বিষয়টি সকলের সন্দেহ হলে সেখানে আলাদা একটি পাইপ ঢুকিয়ে দিরে মাটির নিচ থেকে গ্যাস উঠতে থাকে। উক্ত গ্যাস দিয়ে এলাকাবাসী রান্নার কাজ করছে।
রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, টিউবওয়েলের পাইপ দিয়ে গ্যাস বের হওয়ার খবর শোনা গেছে। আমারা বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করছি। এ ব্যাপারে পেট্রো বাংলা এবং খনিজ সম্পদ মন্ত্রনালয়কে জানানো হবে। তিনি বলেন, আপাতত মনে হচ্ছে এটি পকেট গ্যাস। তবে তা পরীক্ষা নিরীক্ষার পর বোঝা যাবে।

পড়ে দেখুন

চট্টগ্রাম : প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পেল ৫৮৭ পরিবার 

চট্টগ্রাম ব্যুরো :: প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক চট্টগ্রাম জেলায় ভূমিহীন ও গৃহহীন (৩য় পর্যায়) ৫৮৭টি পরিবারকে জমিসহ …