শিরোনাম
প্রচ্ছদ / রাঙ্গামাটি / রাঙ্গামাটির লংগদুতে যৌথ অভিযানে অস্ত্র-গুলিসহ একজন আটক

রাঙ্গামাটির লংগদুতে যৌথ অভিযানে অস্ত্র-গুলিসহ একজন আটক

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ রাঙ্গামাটি লংগদু উপজেলাধীন শিজকমুখ এর খাগড়াছড়ি পাড়ায় অভিযান চালিয়ে অস্ত্র গুলিসহ নির্ভিক চাকমা নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে যৌথবাহিনী।
গতকাল বুধবার সকালে নির্ভিকের বসতঘরে তল্লাসী চালিয়ে নির্ভিকের থাকার ঘর থেকে উপরোক্ত অস্ত্র-শস্ত্র উদ্ধারের পাশাপাশি নির্ভিক চাকমাকে আটক করে যৌথবাহিনীর সদস্যরা।
আটককৃতদের কাছ থেকে দুইটি বিদেশী পিস্তল, একটি এলজি, একটি লং ব্যারেল গান, ১৮ রাউন্ড তাজা গুলি, আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়নের একসেট পোশাক, দামী মোবাইল ফোন-ট্যাব, চাঁদা আদায়ের রশিদ ও আদায়কৃত চাঁদার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।
আটককৃত নির্ভিক চাকমার বিরুদ্ধে অবৈধ অস্ত্র রাখার দায়ে এবং চাঁদাবাজির অভিযোগে থানায়  মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।
লংগদু সেনা জোন সূত্র জানায়, বাঘাইছড়ি উপজেলার সার্বোয়াতলী ইউনিয়নের  শিজকমুখ এলাকার  দেব শান্তি চাকমার পুত্র নির্ভিক চাকমা ওরফে ছোটমনি দীর্ঘদিন ধরে সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে জড়িত রয়েছে। বাঘাইছড়ির শিজকমুখ লংগদু সেনা জোনের আওতাধীন এলাকা হওয়ায় লংগদু জোনের সেনা সদস্যের একটি টিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার ভোর রাতে অভিযান চালায়। এসময় সেনাবাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়ে নির্ভিক চাকমা তার ঘরের পেছনের দরজা দিয়ে পালানোর সময় তাকে আটক করে সেনা সদস্যরা।
পরে তার স্বীকারোক্তিতে ঘরের ভিতর বিভিন্ন জাগায় লুকিয়ে রাখা ২টি অটো পিস্তল,১টি এলজি পিস্তল,১টি লং বেরেল গান বন্দুক, ১০ রাউন্ড পিস্তলের গুলি, ৮ রাউন্ড গান রাইফেলের গুলি, এক সেট ইউনির্ফম সহ নগদ সতের হাজার তিনশত একত্রিশ টাকা উদ্ধার করা হয়।
এই অভিযানে লংগদু জোনের জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল মোঃ আব্দুল আলীম চৌধুরীর নেতৃত্বে উপ-অধিনায়ক মেজর মোঃ গোলাম আজম, ২য় লেপ্টেন্যান্ট আব্দুল হামিদ, মাষ্টার ওয়ারেন্ট অফিসার রফিকুল ইসলাম সহ সেনা সদস্যরা অংশ নেন।
সূত্র জানায়, আটককৃত নির্ভিক চাকমা ওরফে ছোটমনি সে নিজেকে পার্বত্য চট্টগ্রামের আঞ্চলিক সংগঠন জনসংহতি সমিতি (সন্তু) শিজকমুখ এলাকার সহকারী চীপ কলেক্টর বলে জানিয়েছেন।
এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন সাধারণ পাহাড়ী জানায়, নির্ভিক চাকমা আটকের ঘটনায় ঐএলাকায় সাধারণ জনসাধরণ কিছুটা হলেও হস্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন। কেননা নির্ভিক চাকমার চাঁদাবাজী সহ বিভিন্ন কর্মকান্ডে সাধারণ পাহাড়ী ও বাঙ্গালীরা অস্থির হয়ে উঠেছে।
বাঘাইছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম চৌধুরী শিজকমুখে অস্ত্র উদ্ধার ও সন্ত্রাসী আটকের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বাংলানিউজকে জানান, শিজকমুখ এলাকাটি লংগদু সেনা জোনের আওতায় রয়েছে। উদ্ধারকৃত অস্ত্র ও সন্ত্রাসীকে বাঘাইছড়ি থানায় হস্তারের প্রক্রিয়া চলছে। এব্যাপারে শিঘ্রই একটি মামলা করা হবে।

পড়ে দেখুন

তৃণমূল সাংবাদিকতায় অবদানের জন্য বসুন্ধরা মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড পেলেন এ কে এম মকছুদ আহমেদ

॥ ডেস্ক রিপোর্ট ॥ সমাজের সুষ্ঠু বিকাশে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার গুরুত্ব তুলে ধরে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী …