শিরোনাম
প্রচ্ছদ / খেলা / আফগানদের উড়িয়েই শততম জয় পেল বাংলাদেশ

আফগানদের উড়িয়েই শততম জয় পেল বাংলাদেশ


ইংল্যান্ড সিরিজ শুরুর আগে ছন্দে ফিরলো বাংলাদেশ। ওয়ানডেতে নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসে শততম জয়টি স্মরণীয় করে রাখলো টাইগাররা। আফগানিস্তানকে ১৪১ রানের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজটি ২-১ এ জিতে নিয়েছে মাশরাফিবাহিনী। একদিনের ক্রিকেটে রানের হিসেবে এটি বাংলাদেশের চতুর্থ সেরা জয়।

তামিম ইকবালের সেঞ্চুরি ও সাব্বির রহমানের ফিফটিতে স্বাগতিকদের ছুঁড়ে দেওয়া ২৮০ রানের জবাবে ১৬.১ ওভার বাকি থাকতেই ১৩৮ রানে গুটিয়ে যায় আফগানদের ইনিংস। এ নিয়ে দেশের মাটিতে টানা ছয়টি ওডিআই সিরিজ জিতলো টিম বাংলাদেশ।

দীর্ঘ আট বছর পর দলে ফিরেই বল হাতে নিজের সামর্থ্যের জানান দেন মোশাররফ হোসেন রুবেল। আট ওভারে ২৪ রান খরচায় সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট তুলে নেন ৩৪ বছর বয়সী এ বাঁহাতি স্পিন অলরাউন্ডার।

বাংলাদেশের সামনে রেকর্ড ব্যবধানে জয়ের হাতছানি ছিল। কিন্তু ২০১২ সালে খুলনায় ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ১৬০ রানে হারানোর কীর্তিটি ছাড়িয়ে যাওয়া হলো না। ৮৯ রানে সাত উইকেট হারানো আফগানদের অষ্টম উইকেটে ৪৩ রান এনে দেয় রশিদ-নাজিবুল্লাহ জুটি।

সর্বোচ্চ ৩৬ রান আসে রহমত শাহর ব্যাট থেকে। এছাড়া নওরোজ মঙ্গল ৩৩, সামিউল্লাহ শেনওয়ারি ১৩, নাজিবুল্লাহ জাদরান ২৬, রশিদ খান ১৭ রান করে আউট হন।

শুধু মোশাররফই নন, বোলিংয়ে প্রতিপক্ষের ব্যাটনম্যানদের কোণঠাসা করে রাখেন প্রত্যেকেই। তাসকিন আহমেদ দু’টি ও একটি করে উইকেট নেন মাশরাফি বিন মর্তুজা, শফিউল ইসলাম, মোসাদ্দেক হোসেন। আফগান অধিনায়ক আসগর স্তানিকজাই (১) ও রশিদ (১৭) রান আউটের ফাঁদে পড়েন।
এর আগে মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে শনিবারের (১ অক্টোবর) ম্যাচটিতে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। তামিম ইকবালের সেঞ্চুরি ও সাব্বির রহমানের ফিফটিতে নির্ধারিত ওভারে আট উইকেটে ২৭৯ রানের লড়াকু পুজি পায় বাংলাদেশ।

প্রায় দেড় বছরের আক্ষেপ ঘুঁচিয়ে ওয়ানডেতে ক্যারিয়ারের সপ্তম সেঞ্চুরি তুলে নেন তামিম। সমানসংখ্যক বলে তার ১১৮ রানের ইনিংসে ছিল ১১টি চার ও ২টি ছক্কার মার। কিন্তু ৩৯তম ওভারে দলীয় ২১২ রানে তামিমের বিদায়ের পর সাকিব-মুশফিক-মোসাদ্দেক দ্রুত বিদায় নিলে ষষ্ঠ উইকেটের পতন ঘটে। বড় সংগ্রহের লক্ষ্য থেকে ব্যাকফুটে চলে যায় দল। সেখান থেকে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ঝড়ো ইনিংসে (২২ বলে ৩২ অপ.) লড়াকু সংগ্রহ পায় দল।
ইনিংসের তৃতীয় ওভারের প্রথম বলেই ব্যক্তিগত ১ রানে জীবন পেয়েছিলেন তামিম। মোহাম্মদ নবীর বলে মিডঅনে সহজ ক্যাচ হাতছাড়া করেন অাফগান অধিনায়ক আসগর স্তানিকজাই। শেষ পর্যন্ত এর চড়া মাশুলই গুণতে হয় সফরকারীদের।

ষষ্ঠ ওভারে মিরওয়েস আশরাফের বলে মোহাম্মদ শাহজাদের গ্লাভসবন্দি হয়ে পুরো ওয়ানডে সিরিজেই ব্যর্থতার পরিচয় দেন সৌম্য সরকার (১১)। আগের দুই ম্যাচে তার রান যথাক্রমে ০, ২০।
সৌম্যর ব্যর্থতার বিপরীতে চেনা রূপে ফেরেন সাব্বির। প্রথম দুই ওয়ানডের ব্যর্থতা (২, ৪) ভুলে ৬৫ রানের কার্যকরী ইনিংস উপহার দেন তিনি। ছাড়িয়ে যান একদিনের ক্রিকেটে নিজের আগের সর্বোচ্চ স্কোর (৫৭)। ৩১তম ওভারে নওরোজ মঙ্গলের বলে রহমত শাহর ক্যাচে পরিণত হন।

এছাড়া আর কেউই বলার মতো স্কোর করতে পারেননি। সাকিব আল হাসান ১৭, মুশফিকুর রহিম ১২ রান করে আউট হন। আগের ম্যাচে ৪৫ রানের অপরাজিত ইনিংসে অভিষেকেই আলো ছড়ানো মোসাদ্দেক হোসেন ব্যক্তিগত ৪ রানে স্ট্যাম্পিংয়ের ফাঁদে পড়েন।
আফগানদের হয়ে মোহাম্মদ নবী, মিরওয়েইস আশরাফ ও রশিদ খান দু’টি করে উইকেট লাভ করেন। একটি করে নেন দাওলাত জাদরান, রহমত শাহ।

ম্যাচ সেরার সঙ্গে সিরিজ সেরার পুরস্কারও ওঠে তামিমের হাতে। তিন ম্যাচে ২১৮ রান করেন এ দেশসেরা ওপেনার।
আফগানিস্তান সিরিজ শেষ। বাংলাদেশের সামনে এবার ইংল্যান্ড সিরিজের (তিনটি ওয়ানডে ও দু’টি টেস্ট) চ্যালেঞ্জ। আগামী ৭ অক্টোবর মিরপুরে প্রথম ওয়ানডেতে ইংলিশদের মুখোমুখি হবে মাশরাফিবাহিনী।

পড়ে দেখুন

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

॥ ডেস্ক রিপোর্ট ॥ অমর একুশে ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ঐতিহাসিক ভাষা আন্দোলনের শহীদদের …