শিরোনাম
প্রচ্ছদ / ব্রেকিং নিউজ / রাঙ্গামাটিতে পার্বত্য চট্টগ্রাম রেগুলেশন ১৯০০ গ্রন্থের ইংরেজী ও বাংলা সংস্করণের মোড়ক উম্মোচন

রাঙ্গামাটিতে পার্বত্য চট্টগ্রাম রেগুলেশন ১৯০০ গ্রন্থের ইংরেজী ও বাংলা সংস্করণের মোড়ক উম্মোচন

রাঙ্গামাটিতে পার্বত্য চট্টগ্রাম রেগুলেশন ১৯০০ গ্রন্থের ইংরেজী ও বাংলা সংস্করণের মোড়ক উম্মোচন

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ সময়ের বিবর্তনে পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের পুরোনো আমলের আইন সমূহ সংস্কার করে তা যুগোপযোগী করা হলে তা একদিকে যেমন প্রতিষ্ঠা পাবে তেমনী আইনের ক্রুটি বিচ্যুতিগুলো নিরসন হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন  সুপ্রীম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি মোহাম্মদ নিজামুল হক।
তিনি শনিবার (১২ নভেম্বর) রাঙ্গামাটি পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের সম্মেলন কক্ষে পার্বত্য চট্টগ্রাম রেগুলেশন ১৯০০ গ্রন্থের ইংরেজী ও বাংলা সংস্করণের প্রকাশনা উৎসবের মোড়ক উম্মোচন অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন।
তিনি এপর্যন্ত সুপ্রীম কোর্টের দেয়া পার্বত্য অঞ্চলে আইনের আলোকে নিষ্পত্তি হওয়া সকল মামলার রায় সমূহ একত্রিত করে গ্রন্থ আকারে প্রকাশের উপরও গুরুত্বরোপ করেন।
পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ চেয়ারম্যান সন্তু লারমার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের হাই কোর্টের বিচারপতি রুহুল কুদ্দুস, সুপ্রীম কোর্টে এডভোকেট জেড আই খান পান্না, চাকমা সার্কেল চীফ রাজা দেবশীষ রায়, রাঙ্গামাটি জেলা দায়রা জজ আদালতের বিচারক কাউসার চৌধুরী, রাঙ্গামাটি জেলা আইনজীবি সমিতির সভাপতি প্রতিম রায় পাম্পু ও রাঙ্গামাটি জেলা জজ মোঃ কাউসার, এ্যাডভোকেট প্রতিকার চাকমা বক্তব্য রাখেন।
সভাপতির বক্তব্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের চেয়ারম্যান ও জনসংহতি সমিতি সভাপতি জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা ওরফে সন্তু লারমা বলেন, পার্বত্য অঞ্চলের বিশেষ শাসন ব্যবস্থা প্রবতির্ত হলেও ৪৬ বছর ধরে সেনা শাসন চলছে। একারণে এখানকার আইন, বিচার ও শাসন ব্যবস্থা গণমুখি হতে পারছে না। তিনি বলেন, যে অঞ্চলে সেনা শাসন চলে, সে অঞ্চলে বিচার বিভাগ, আঞ্চলিক পরিষদ ও জেলা পরিষদের কিছুই করার থাকেনা। এ শাসনের কারণে পাহাড়ের জাতিগোষ্ঠিগুলো সীমাবদ্ধতার মধ্যে বসবাস করছে। তিনি পার্বত্যাঞ্চলের বিচার ব্যবস্থাকে যথাযথ করতে শাসক গোষ্ঠিকে এগিয়ে আসার আহবান জানান।
হাই কোর্টের বিচারপতি রুহুল কুদ্দুস বলেন, পার্বত্য অঞ্চলের আইন সমূহ জীবন্ত, সার্থক ও কার্য উপযোগী কিনা তা দেখতে হবে। তার জন্য সময় সময় এই সব আইনের সংশোধন প্রয়োজন তা করে এইসব আইনের অসম্পূর্ণতা পুরণ করে সময় উপযোগী করা দরকার।
উল্লেখ্য, রাঙ্গামাটি জেলা আইনজীবি সমিতি ও এএলআরডি যৌথ উদ্যোগে পার্বত্য চট্টগ্রামের ১৯০০ সালের শাসন বিধির ইংরেজী ও বাংলায় সংস্করনের গ্রস্থ প্রকাশ করে।

পড়ে দেখুন

“চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিবেশ রক্ষা” পরিষদের নিয়মিত মাসিক সভা অনুষ্ঠিত

“চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিবেশ রক্ষা” পরিষদের নিয়মিত মাসিক সভায় সম্মানিত সভাপতি আলহাজ¦ আবুল কালাম আজাদ এর …