শিরোনাম
প্রচ্ছদ / খাগড়াছড়ি / খাগড়াছড়িতে সাংবাদিকের জিডি ‘মামলা’ হিসেবে নিয়ে তদন্তের আদেশ

খাগড়াছড়িতে সাংবাদিকের জিডি ‘মামলা’ হিসেবে নিয়ে তদন্তের আদেশ

খাগড়াছড়িতে সাংবাদিকের জিডি ‘মামলা’
হিসেবে নিয়ে তদন্তের আদেশ

॥ খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি ॥ খাগড়াছড়ি সদর থানায় জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে ৩৫ সাংবাদিকের করা সাধারণ ডায়রিটি (জিডি) অনিবন্ধিত (নন-জিআর) মামলা হিসেবে তালিকাভুক্ত করে তদন্তের আদেশ দিয়েছেন খাগড়াছড়ির সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আবু সুফিয়ার মো. নোমান।
খাগড়াছড়ি সদর থানার অফিসার্স ইনচার্জ তারেক মোহাম্মদ আব্দুল হান্নান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, ‘৩৫ সাংবাদিকদের জিডি নন-জিআর মামলা হিসেবে গ্রহণ করা হয়েছে। খাগড়াছড়ির সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আবু সুফিয়ার মো. নোমানের আদালত থেকে অনুমোদন পাওয়ার পর মামলাটির তদন্ত চলছে।’
প্রসঙ্গত, গত ১৮ ডিসেম্বর পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে একটি দৈনিক পত্রিকার ফটো সাংবাদিক নিরব চৌধুরীকে খাগড়াছড়ি পৌরসভার মেয়র রফিকুল আলমের অনুসারীরা ধরে নিয়ে যায় ও মারধর করে।
এর প্রতিবাদে গত ২০ ডিসেম্বর নগরীর শাপলা চত্বরে স্থানীয় সাংবাদিকরা এক মানববন্ধনে কর্মসূচির আয়োজন করে। মানববন্ধন কর্মসূচি চলাকালে পৌর মেয়রের ৪০-৪৫জন অনুসারী ‘একটি-দুটি সাংবাদিক ধর, ধরে ধরে জবাই কর, সাংবাদিকদের আস্তানা-জ্বালিয়ে দাও পুড়িয়ে দাও’ ইত্যাদি শ্লোগান দিয়ে মিছিলসহ মানববন্ধনস্থলে এসে হাজির হয়। একপর্যায়ে তারা মানববন্ধন কর্মসূচির জন্য ভাড়া করা মাইক কেড়ে নিয়ে সাংবাদিকদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। এ সময় পৌর মেয়রের অনুগত হিসেবে পরিচিত মো. দিদার ওরফে কসাই দিদার প্রকাশ্যে মানববন্ধনে অংশ নেওয়া সাংবাদিকদের হত্যার হুমকি দেয় বলে স্থানীয় সাংবাদিকরা অভিয়োগ করেন।
এই ঘটনায় উদ্বিগ্ন হয়ে সাংবাদিকেরা তাৎক্ষণিক খাগড়াছড়ির সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান ও পুলিশ সুপার মো. মজিদ আলীর সঙ্গে দেখা করে তাদের বিষয়টি জানান এবং ৩৫জন সাংবাদিক খাগড়াছড়ি সদর থানায় গিয়ে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে জিডি করেন। এ ব্যাপারে সাংবাদিক নিরব চৌধুরী পৃথক জিডি দায়ের করেছিলেন।
শান্তিপূর্ণ মানববন্ধন কর্মসূচি পালনকালে সেখানে মেয়রের অনুগতরা মাইক কেড়ে নিয়ে তাদের হত্যাসহ নানা হুমকি দিলেও পুলিশ ওই সময় নির্বিকার ছিল বলে সাংবাদিকদরা অভিযোগ করেছেন।
সাংবাদিকরা বলেছেন, পুলিশ শুধু নির্বিকার ছিল না, বরং সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো সাংবাদিকদের কর্মসূচি সংক্ষিপ্ত করার পরামর্শ দিয়েছিল।
এদিকে বৃহস্পতিবার রাঙ্গামাটিতে কমর্রত সাংবাদিকরা খাগড়াছড়ির সাংবাদিকদের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন করে। মানববন্ধনে অবিলম্বে খাগড়াছড়ি সাংবাদিকদের উপর সন্ত্রাসী হামলার নেতৃত্বদাতা অভিযুক্ত খাগড়াছড়ি পৌর মেয়র ও তাঁর সহযোগিদের গ্রেফতারসহ সুষ্ট বিচারের আওতায় আনতে প্রশাসনের কাছে জোড়দাবি জানান।

পড়ে দেখুন

অধিক শস্য ফলনের জন্য বিদ্যুৎ ব্যবহারে সবাইকে সাশ্রয়ী হবার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

॥ ডেস্ক রিপোর্ট ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হবার পাশাপাশি সকলকে সঞ্চয় করার …