শিরোনাম
প্রচ্ছদ / খাগড়াছড়ি / দীঘিনালা মাইনি নদীর উপর নির্মিত সেতু’র উদ্ধোধন

দীঘিনালা মাইনি নদীর উপর নির্মিত সেতু’র উদ্ধোধন

॥ মোহাম্মদ আবু তৈয়ব, খাগড়াছড়ি ॥  খাগড়াছড়ির সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা বলেছেন, কোন শক্তি সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড বাধাগ্রস্থ করতে চাইল আওয়ামীলীগের কর্মীরা ঘরে বসে থাকবে না। তিনি আঞ্চলিক দলগুলোর বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগ করেন।
তিনি গত বুধবার বিকালে খাগড়াছড়ি জেলার দীঘিনালা উপজেলার থানা বাজারের পূর্বপার্শ্বে মাইনি নদীর উপর নির্মিত সেতু’র শুভ উদ্ধোধনকালে তাকে দেওয়া এক সংবর্ধনা সভায় এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। পার্বত্য জেলা পরিষদের অর্থায়নে সেতুটি নির্মাণে ব্যায় হয়েছে ৩ কোটি ৯৫ লক্ষ ৭৫ হাজার টাকা।
খাগড়াছড়ির দীঘিনালা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মো. নুরুনবীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, দীঘিনালা জোন উপ- অধিনায়ক মো. সাব্বির আহম্মহ পিএসসি, উপজেলা চেয়ারম্যান নব কমল চাকমা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মো. আবুল কাশেম, পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য শতরুপা চাকমা, এড আশুতোষ চাকমা, নিরোধপল খীসা প্রমূখ।
প্রধান অতিথি বক্তব্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেন বর্তমান সরকার শান্তি, সম্প্রীতি ও উন্নয়নের বিশ্বাসী।পার্বত্য চট্টগ্রামে দীর্ঘ রক্তক্ষয়ী সংর্ঘশের এই এলাকার পাহাড়ী-বাঙ্গালী মানুষগুলি কথা চিন্তা করে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৭ সালে পার্বত্য শান্তি চুক্তি করেছিল মানুষের ভাগ্য উন্নয়নের জন্য।
তিনি সংবর্ধনা সভায় অভিযোগ করে বলেছেন, পার্বত্য এলাকায় যেখানে উন্নয়নের কাজ শুরু হয় সেখানে কয়েকটি আঞ্চলিক দল চাঁদা দাবী করে। ফলে উন্নয়ন কাজ বন্ধ হয়ে যায়। এটা মেনে নেওয়া যায় না।
বর্তমান সরকারের উন্নয়ন কাজে কোন প্রকার বাধা আসলে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসীদের দাঁত ভাঙ্গা জবাব দেবে আওয়ামীলীগ কর্মীরা।

পড়ে দেখুন

অধিক শস্য ফলনের জন্য বিদ্যুৎ ব্যবহারে সবাইকে সাশ্রয়ী হবার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

॥ ডেস্ক রিপোর্ট ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হবার পাশাপাশি সকলকে সঞ্চয় করার …