শিরোনাম
প্রচ্ছদ / চট্টগ্রাম / মিরসরাইয়ে জঙ্গি আস্তানায় ৮ ঘন্টার পুলিশি অভিযান

মিরসরাইয়ে জঙ্গি আস্তানায় ৮ ঘন্টার পুলিশি অভিযান

॥ মিরসরাই প্রতিনিধি ॥ চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে একটি ভাড়া বাসায় অভিযান চালিয়ে পুলিশ বিপুল পরিমান অবিস্ফোরিত গ্রেনেড, বিস্ফোরক দ্রব্য ও বোমা তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করেছে। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১০ টা থেকে পুলিশের একটি যৌথ দল কুমিল্লায় আটক জঙ্গীদের নিয়ে মিরসরাই পৌরসভার ০৪ নং ওয়ার্ডের পূর্ব গোভনিয়ার রেদোয়ান মঞ্জিলের দুইতলা বাড়ির নিততলার এই আস্তানায় বুধবার ভোর ৬টা পর্যন্ত অভিযান পরিচালনা করে এসব জিনিস উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার (৭ মার্চ) সকাল ১১ টায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা জেলার চান্দিনার কুটুম্বপুর এলাকায় অভিযানে আটক দুই জঙ্গি মাহমুদুল হাসান ও জসিম উদ্দিনের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, মিরসরাই পৌরসভার পূর্ব গোভনীয়ার রেদোয়ান মঞ্জিলে তাদের আরেকটি আস্তানা রয়েছে। সেই তথ্যের ভিত্তিতে ঢাকার কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট, কুমিল্লা জেলা পুলিশ, চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ ও সিএমপি’র বোমা/বিস্ফোরক ডিসপোজাল ইউনিট যৌথভাবে মঙ্গলবার রাত ১০ টা থেকে বুধবার ভোর ৬ টা পর্যন্ত ৮ ঘন্টা অভিযান চালিয়ে জঙ্গিদের ভাড়া নেওয়া বাসা থেকে ২৯ টি অবিস্ফোরিত গ্রেনেট, ৪০ টি পাওয়ার জেল, ২৮০ প্যাকেট কার্বন স্টীলবল, ছোট-বড় ০৯ টি চাপাতি, ১১ কেজি বিস্ফোরক সদৃশ্য পাউডার ও বোমা তৈরিতে ব্যবহৃত বিভিন্ন রকমের সরঞ্জাম, আই এস এর সিল সংবলিত আরবী হরফের লেখা কালো একটা জিহাদী পতাকা, ৭টি কালো পাঞ্জাবী, বিস্ফোরক বহনের ব্যাগ উদ্ধার করা হয়। জঙ্গিদের ওই আস্তানায় প্রাপ্ত বিস্ফোরক দ্রব্য গুলো মধ্যে ঝুকিপূর্ণ নয় এমন জিনিস গুলো বুধবার সকালেই পুলিশ তাদের হেফাজতে নেয় এবং ঝুকিপূর্ণ অবিস্ফোরিত গ্রেনেটগুলো বুধবার বিকালবেলা খোলা মাঠে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের বোমা নিস্ক্রিয়করন দলের সদস্যরা নিস্ক্রিয় করে।
এ ব্যাপারে, চট্টগ্রাম পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা দুপুর ১টায় ওই বাড়ির সামনে উপস্থিত সাংবাদিকদের জানান, গতকাল কুমিল্লার চান্দিনায় আটক জঙ্গিদের তাৎক্ষনিক জিজ্ঞাসাবাদে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে এই বাড়িটিতে অভিযান চালানো হয়েছে। এসময় তিনি আরো জানান, মিরসরাইয়ের এই বাসাটি আটক জঙ্গী মাহমুদ হাসান চলতি বছর ফেব্রুয়ারীর ১ তারিখে তার বোন এবং ভগ্নিপতি সহ থাকবে বলে ভাড়া নিলেও তারা ওই বাসায় উঠেন চলতি মাসের ১ তারিখে। এখানে জঙ্গিদের আস্তানা কিনা এমন এক প্রশ্নে পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা বলেন, জঙ্গিরা তাদের সুবিধা মতো কিছুদিন পর পর তাদের বাসস্থান পরিবর্তন করে এবং নাশকতা মূলক কর্মকান্ড পরিচালনা করে থাকে, তাই আমরা এই বাসাটিকে ঠিক জঙ্গি আস্তানা বলবো না। এসময় তিনি এলাকাবাসিকে এই বিষয়ে ভয় না পেয়ে শান্ত থাকার আহবান জানান।
এ বিষয়ে মিরসরাই এসসপি সার্কেল ইঞ্জিনিয়ার মাহবুবুর রহমান জানান, আটককৃত জঙ্গীরা ভুয়া পরিচয় পত্র ব্যবহার করে এখানে বাসা ভাড়া নিয়েছিলো। জিজ্ঞাসা বাদের জন্য বাড়ির মালিক রেদোয়ানকে আটক করা হয়েছে। এবিষয়ে একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

পড়ে দেখুন

“চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিবেশ রক্ষা” পরিষদের নিয়মিত মাসিক সভা অনুষ্ঠিত

“চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিবেশ রক্ষা” পরিষদের নিয়মিত মাসিক সভায় সম্মানিত সভাপতি আলহাজ¦ আবুল কালাম আজাদ এর …