শিরোনাম
প্রচ্ছদ / তৃণমূল / লামায় মারমা দম্পতিকে জবাই করে খুন

লামায় মারমা দম্পতিকে জবাই করে খুন

॥ এস.কে খগেশপ্রতি চন্দ্র খোকন ॥ বান্দরবানের লামা উপজেলার ইয়াংছা ছোট মার্মা পাড়ায় বৃদ্ধ দম্পতিকে জবাই করে খুন করা হয়েছে। উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের বনপুর ছোট মার্মা পাড়ায় শনিবার গভীর রাতের কোন এক সময় এই বৃদ্ধ স্বামী-স্ত্রীকে খুন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন নিহতের বড় ছেলে উহ্লামং মার্মা। পুলিশ লাশ উদ্ধার করেছে।
নিহতরা হলেন, ক্যাহ্লাচিং মার্মা (৭০) ও তার স্ত্রী চিংহ্লামে মার্মা (৬৫)। নিহতের ৩ ছেলে ও ৩ মেয়ে রয়েছে।
নিহতের মেয়ে মাঅং মার্মা (৪২) বলেন, আমার বাবা-মা দুইজন নিজেদের বাড়িতে একা থাকত। শনিবার সকাল ৭টায় আমি তাদেরকে রান্না করে দিতে এসে দেখি আমার বাবা ও মায়ের রক্তাক্ত লাশ বিছানায় পড়ে আছে। বাবার গলা কাটা অবস্থা ও মায়ের বুকে কাটা বুকে কাটা অবস্থায় দেখতে পাই। আমার চিৎকারে আশপাশের লোকজন সবাই ছুটে আসে।
নিহতের ৩য় ছেলে হ্লাঅং প্রু বলেন, ঘরের আলমারি, সিন্দুক, বক্সের তালা খোলা রয়েছে। সারা ঘর এলামেলো ও জিনিসপত্র গুলো ছড়ানো ছিটানো রয়েছে। মাটির দুইতলা ঘরের উপরের অংশের ছোট জানালা গুলো খোলা রয়েছে। যা সব সময়বন্ধ থাকত। তিনি আরো বলেন, ৫ থেকে ৬ মাস পূর্বে আমার বাপের বাড়ীতে চোর ডুকে লক্ষাধিক টাকা নিয়ে গিয়েছিল।
ইয়াংছা ছোট পাড়ার কারবারী অংশৈ প্রু মার্মা ও নিহতের বড় ছেলে উহ্লামং মার্মা ও ৯নং ওয়ার্ডের মেম্বার আপ্রু সিং মার্মা বলেন, ক্যাহ্লাচিং মার্মা ৯নং ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বার ছিল। তার জায়গা জমি ও অনেক সম্পত্তি রয়েছে। জায়গা জমির বিরোধ অথবা পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এ ঘটনা ঘটতে পারে বলে তারা জানাই।
ঘটনা জানা জানির পর পর লামা থানার পুলিশ ও লামার ইয়াংছা ক্যাম্পের সেনাবাহিনীর একটি টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
এ ব্যাপারে লামা থানার অফিসার ইনচার্জ আনোয়ার হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আমরা জানতে পেরে ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করেছি। ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে।

পড়ে দেখুন

চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) দ্বি–বার্ষিক নির্বাচনের ফলাফল আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা

চট্টগ্রাম ব্যুরো :: ঐতিহ্যবাহী চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) দ্বি–বার্ষিক নির্বাচনের ফলাফল আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করেছেন সিইউজে …