শিরোনাম
প্রচ্ছদ / চট্টগ্রাম / নির্বাচনকে সামনে রেখে ভেদাভেদ ভুলে নৌকা প্রতীকের বিজয়ে দৃঢ় সংকল্পের বিকল্প নেই

নির্বাচনকে সামনে রেখে ভেদাভেদ ভুলে নৌকা প্রতীকের বিজয়ে দৃঢ় সংকল্পের বিকল্প নেই

০১ এপ্রিল শনিবার বিকাল ৪টায় সাতকানিয়া কেরানিহাট হক টাওয়ার চত্বরে সাতকানিয়া উপজেলা নাগরিক কমিটির উদ্যোগে চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের নবনির্বাচিত দুই সদস্য যথাক্রমে- মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন ও শাহিদা আক্তার জাহানের বিশাল নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়। চট্টগ্রাম-১৫ সাতকানিয়া-লোহাগাড়া আসনের সংসদ সদস্য প্রফেসর ড.আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দীন নদভী এমপি’র সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম-১৪ আসনের সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম চৌধুরী, প্রধান বক্তা ছিলেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাঈনুদ্দিন হাসান চৌধুরী, বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মোহাম্ম ইদ্রিস, এম.এ সাঈদ, রূপালী ব্যাংক লিমিটেড এর পরিচালক ও চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি আবু সুফিয়ান, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক নুরুল আবছার চৌধুরী, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য আবুল কালাম আজাদ, নাগরিক সংবর্ধনা পরিষদের আহ্বায়ক ও সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মাষ্টার ফরিদুল আলম, মোহাম্মদ মোজাম্মেল হক, সাবেক সাতকানিয়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার রমিজ উদ্দিন আহমদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ মোজাফ্ফর আহমদ।

উপজেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক সাঈদুর রহমান দুলাল ও সদস্য এরফানুল করিম চৌধুরীর সঞ্চালনায় নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ আহমদ লিটন, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাহমুদুর রহমান, উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা নজরুল ইসলাম মানিক, মোঃ আবু তাহের, সাবেক মহানগর ছাত্রলীগ নেতা গিয়াস উদ্দিন হিরু, চট্টগ্রাম টেরিবাজার বনিক সমিতির সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান ওসমান গণি চৌধুরী, সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য সাইফুদ্দিন হাছান শাহিন, শামশুল ইসলাম, ওসমান গণি সিকদার, মোঃ আজাদ চৌধুরী, মাদার্শা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আ.ন.ম সেলিম চৌধুরী, সাতকানিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নেজামুদ্দিন, আমিলাইশ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এইচ.এম হানিফ, ছদাহা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোসাদ হোসেন চৌধুরী, ঢেমশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রিদুয়ানুল হক, পশ্চিম ঢেমশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবু তাহের জিন্নাহ, কেওচিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মনিরুল আলম, কাঞ্চনা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোখলেছ উদ্দিন জাকের, এডভোকেট কামাল উদ্দিন, সাতকানিয়া উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি সাইফুল ইসলাম, শফিউল আজম চৌধুরী সোহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহাব উদ্দিন, উপজেলা কৃষকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক লুৎফুর রহমান, দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগ নেতা আবুল কালাম আজাদ, সাতকানিয়া কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি কামাল উদ্দিন, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক আবু ছালেহ শান, স্থানীয় সাংসদের সহকারি একান্ত সচিব মোঃ জাহাঙ্গীর আলম ও শাহাদাত হোসেন শাহেদ, উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা সাইফুল ইসলাম রুবেল, রাহাত ও মিনহাজ প্রমুখ। সভাপতির বক্তব্যে চট্টগ্রাম-১৫ সাতকানিয়া-লোহাগাড়া আসনের সংসদ সদস্য প্রফেসর ড.আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দীন নদভী এমপি বলেন, আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে সকল প্রকার ভেদাভেদ ভুলে নৌকা প্রতীকের বিজয়ে দৃঢ় সংকল্পের কোন বিকল্প নেই। তিনি বলেন, ব্যক্তির চেয়ে দল বড়, দলের চেয়ে দেশ বড়- এই মানসিকতাকে নিয়ে আগামী নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধের প্রতীক নৌকাকে বিজয়ী করতে এখন থেকেই প্রস্তুতি নিতে হবে। দল যাকে মনোনয়ন দেবেন তাঁর পক্ষেই কাজ করার দৃঢ় সংকল্পই হচ্ছে দলীয় আনুগত্যের মূল চাবিকাটি।

তিনি দলের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে আগামী ৮ এপ্রিল সাতকানিয়া ছদাহা টাইম ক্যাফে স্কয়ারে আয়োজিত জঙ্গীবিরোধী ওলামা সমাবেশের অংশ গ্রহণ করার জন্য সাতকানিয়া লোহাগাড়ার প্রতিটি মাদ্রাসা ও মসজিদের খতীবসহ ওলামা মাশায়েখদের প্রতি আহ্বান জানান। সাতকানিয়ার ব্যবসায়িক প্রাণকেন্দ্র কেরানিহাটে ফ্লাইওভার নির্মাণসহ কেরানীহাটকে পৌর সভায় উন্নীত করার সর্বাত্মক উদ্যোগ নেওয়া হবে বলে আশ্বাস প্রদান করেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম-১৫ (চন্দনাইশ-সাতকানিয়া) আসনের সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম চৌধুরী কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন থেকে শিক্ষা নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, উন্নাসিকতার কোন সুযোগ নেই। তৃনমূল পর্যায়ে দলকে সুসংগঠিত করার পাশাপাশি বর্তমান সরকারের ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড জনগণের সামনে তুলে ধরে ভোটারদের মন জয় করতে হবে। আগামী নির্বাচনে দলকে বিজয়ী করতে সকল প্রকার সংকির্ণতা ও ক্ষুদ্র মতপার্থক্যতা ভুলে কাঁধে কাধ মিলিয়ে কাজ করতে হবে।

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাঈনুদ্দিন হাসান চৌধুরী বলেন, শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসলে দেশে কাজ হয়। কারণ তাঁর বিবেকে তাড়না আছে। বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে ৩০ লাখ লোকের আত্মহুতি। বাংলার দুঃখী মানুষের হাসি ফোটানোর জন্য বঙ্গবন্ধু যে সংকল্প তা যদি বাস্তবায়িত না হয়, তাহলে ৩০ লাখ মানুষের কাছে জবাবদিহী করতে হবে। তিনি বলেন, একসময় বাংলাদেশকে উপহাস করে তলাবিহীন ঝুড়ি বলা হত, আজ সে বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়ার উদিয়মান শক্তি। অর্থনৈতিক অগ্রগতির সকল সুচকে বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর চেয়ে এগিয়ে রয়েছে। এ অর্জনের পেছনে বড় অবদান জননেত্রী শেখ হাসিনা। তিনি ক্ষুদ্র মত পার্থক্য ভুলে সকলকে দলীয় স্বার্থে মিলেমিশে কাজ করার জন্য আহ্বান জানান। রূপালী ব্যাংকের পরিচালক ও চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি আবু সুফিয়ান বলেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী বঙ্গবন্ধু বাঙ্গালীমননে আপন কীর্তিতেই দেদীপ্যমান। ইতিহাস থেকে বঙ্গবন্ধুকে মুছে ফেলার শত চেষ্টার পরেও বঙ্গবন্ধু ইতিহাসের পাতায় মহিয়ান। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে দেশ সেবায় এগিয়ে আসতে নতুন প্রজন্মের প্রতি তিনি আহ্বান জানান।

পড়ে দেখুন

অধিক শস্য ফলনের জন্য বিদ্যুৎ ব্যবহারে সবাইকে সাশ্রয়ী হবার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

॥ ডেস্ক রিপোর্ট ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হবার পাশাপাশি সকলকে সঞ্চয় করার …