শিরোনাম
প্রচ্ছদ / খাগড়াছড়ি / দীঘিনালায় হেডম্যান-কার্বারী সম্মেলন অনুষ্ঠিত

দীঘিনালায় হেডম্যান-কার্বারী সম্মেলন অনুষ্ঠিত

॥ সোহেল রানা দীঘিনালা, দীঘিনালা ॥ খাগড়াছড়ির দীঘিনালা জোনের জাগ্রত ২০ বেঙ্গলের আয়োজনে সোমবার (২২ মে) সকাল সাড়ে ১০টায় জোন সদরের চিত্তবিনোদন কক্ষে হেডম্যান কার্বরী সম্মেলনের অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সম্মেলনের সভাপতিত্ব করেন দীঘিনালা হেডম্যান এসোসিয়েসনের সভাপতি হেডম্যান প্রন্তর চাকমা। এতে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার মৌজা প্রধান (হেডম্যান) গ্রাম প্রধান (আদাম প্রধান বা কার্বারী) অংশ নেয়।
এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য প্রধান করেন, দীঘিনালা জোন অধিনায়ক লে: কর্ণেল ফেরদৌস জিয়াউদ্দিন মাহমুদ পিএসসি। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নব কমল চাকমা, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ মাহফুজুর রহমান, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান গোপা দেবী চাকমা, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ সাইফুল আলম।
এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সুসময় চাকমা, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ মিনহাজ উদ্দিন প্রমূখ। হেডম্যান- কার্বারীদের মধ্যে বক্তব্য প্রধান করেন, কার্বারী যুতিকা চাকমা, কার্বারী নিরূপা চাকমা, ৩১নং মৌজা প্রধান  (হেডম্যান) ত্রিদিপ রায় পোমাং, হেডম্যান দিপংকর দেওয়ান, ৩নং কবাখালী ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন, ২নং বোয়ালখালী ইউপি চেয়ারম্যান চয়ন বিকাশ চাকমা, ৪নং দীঘিনালা ইউপি চেয়ারম্যান চন্দ্র রঞ্জন চাকমা প্রমূখ।
প্রধান অতিথি লে: কর্ণেল ফেরদৌস জিয়াউদ্দিন মাহমুদ বলেন, শান্তি সম্প্রীতি নির্ভর করে এলাকার সকলের উপর, শিক্ষার আলো সন্ত্রাস দুর করে দেয়, চাঁদা আদায় করে প্রকৃত শান্তি প্রতিষ্ঠা করা যায় না। সম্প্রীতি ধরে বজায় রাখতে এলাকার সকলে এগিয়ে আসতে হবে। সকলের ইচ্ছা-শক্তির কারণে এখানে শান্তি বিরাজ করছে। কারণ ছাদিকুল ও রমেল চাকমা হত্যার ঘটনায় পাশ্ববর্তী উপজেলায় উত্তেজনা বিরাজ করলেও দীঘিনালা অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়নি।
তিনি আরো বলেন, মিথ্যা, বানোয়াট অপ্রচার করে আপনাদের এবং আমাদের মাঝে স্বার্থানেস্বী মহল একটি দেয়াল তুলে ধরার চেষ্টা করছে। তাই বিভ্রান্ত না হয়ে সিদ্ধান্ত আপনাদেরকেই নিতে হবে। এসময় তিনি আরো বলেন, আমরা নয় মাস মুক্তিযুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছি। কিন্তু কোন মুক্তিযোদ্ধা চাঁদাবাজী করেনি।
সম্মেলনে নব কমল চাকমা বলেন, পার্বত্যঞ্চলের ৩ ধরনের আইনের অধীনে চলে তার মধ্যে আবার আঞ্চলিক দলের আর এক আইনও আছে সবার অন্তরালায়ে। পৃথিবীতে সবচেয়ে বড় উন্নত সম্পদ হলো মানব সম্পদ। মানব সম্পদকে সঠিক শিক্ষায় শিক্ষিত করতে হবে। আলোচনা করে যে কোন সমস্যা সমাধান করা যায়। তাই চাঁদাবাজী, সন্ত্রাসী, অপহরণ করে, অধিকার আদায় করা সম্ভব নয়।
সম্মেলনে বিভিন্ন এলাকার হেডম্যান ও কার্বারীরা, জামতলী এলাকায় একটি শ্বশান বেদখলের পায়তারা, এলাকার সুপেয় পানি সমস্যা, বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকটসহ বিভিন্ন সমস্যা তুলে ধরলে সম্মেলনে উপস্থিত উপজেলার বিভিন্ন দফতর প্রধানগণ খুব শীঘ্রই সমাধানের আশ্বাস দেন। আলোচনা সভাশেষে কার্বারীদের মাঝে ফুটবল ক্রিকেটের ব্যাট বল ক্রীড়া সামগ্রী বিতরন করা হয়।

পড়ে দেখুন

“চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিবেশ রক্ষা” পরিষদের নিয়মিত মাসিক সভা অনুষ্ঠিত

“চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিবেশ রক্ষা” পরিষদের নিয়মিত মাসিক সভায় সম্মানিত সভাপতি আলহাজ¦ আবুল কালাম আজাদ এর …