শিরোনাম
প্রচ্ছদ / তৃণমূল / তিন দিন পর উদ্ধার হওয়া সেনা সদস্যের লাশ হেলিকপ্টার যোগে গ্রামের বাড়ী নিয়ে যাওয়া হয়েছে

তিন দিন পর উদ্ধার হওয়া সেনা সদস্যের লাশ হেলিকপ্টার যোগে গ্রামের বাড়ী নিয়ে যাওয়া হয়েছে

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ শহরের মানিকছড়ি আর্মি ক্যাম্পের নিচে পাহাড়ী খাদ থেকে উদ্ধার হওয়া কর্মীরা আজিজুর রহমানের লাশ আজ দুপুরে হেলিকপ্টার যোগের রাঙ্গামাটি থেকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তাকে প্রথমে চট্টগ্রাম সেনানিবাসে নিয়ে যাওয়া হবে এবং সেখান থেকে তার গ্রামের বাড়ী মাদারিপুরে নিয়ে যাওয়া হবে।
সেনা সদস্যের লাশ পাওয়ার পর পর ঐ এলাকায় একটি হৃদয় বিদারক দৃশ্যের সৃষ্টি হয়। দুপুরে রাঙ্গামাটি সার্কিট হাউজে হেলিকপ্টার এসে পৌছালে সেনা সদস্যরা তাকে কাঁদে নিয়ে হেলিকপ্টারে তুলে দেয়। এ সময় কেউ চোখের পানি ধরে রাখতে পারেনি।
এদিকে দীর্ঘ ৩ দিনের অভিযান শেষে গতকাল সকাল ১১ টার দিকে তার সেনা সদস্য আজিজুর রহমানের লাশ উদ্ধার করতে সক্ষম হয় সেনাবাহিনী ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। বিকাল একটি এলাকায় প্রায় ৫০ জনের অধিক সেনাসদস্য ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা কাজ চালিয়ে তার লাশ উদ্ধার করে।
উদ্ধার তৎপরতা চলাকালে রাঙ্গামাটি রিজিয়নের রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল গোলাম ফারুকের নেতৃত্বে এই উদ্ধার কাজ মনিটর করেন রাঙ্গামাটি সদর জোনের জোন কমান্ডার লেফটেন্টে কর্ণেল রিদোয়ান, মেজর রাকিবুল হাসান ও রাঙ্গামাটি রিজিয়নের জিটু আই মেজর তানভীর সালেহ্ সার্বক্ষণিক তদারকিতে ছিলেন।
উল্লেখ্য গত ১৩ জুন রাঙ্গামাটিতে বিপর্যয়ের সময় সকালে মানিকছড়িতে প্রকৃতিক দুর্যোগে রাঙ্গামাটি চট্টগ্রাম সড়কে মাটি পড়ে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। রাস্তা পরিস্কারের কাজ করতে গিয়ে তারা পাহাড়ের মাটি চাপা পড়ে নিহত হন। এ ঘটায় রাঙ্গামাটির মানিকছড়ি সেনা ক্যাম্পোর  ৪ সেনা সদস্য মাটি চাপা পড়ে। ঐ দিন ৩ জন মেজর মাহাফুজ, ক্যাপ্টেন তানভির, সৈনিক শাহিন এর লাশ উদ্ধার করা হলেও কর্পোরাল আজিজের লাশ গতকাল উদ্ধার করা হয়।

পড়ে দেখুন

অধিক শস্য ফলনের জন্য বিদ্যুৎ ব্যবহারে সবাইকে সাশ্রয়ী হবার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

॥ ডেস্ক রিপোর্ট ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হবার পাশাপাশি সকলকে সঞ্চয় করার …