শিরোনাম
প্রচ্ছদ / Uncategorized / ১৪ দলের প্রতিনিধি দলের লংগদুর ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন

১৪ দলের প্রতিনিধি দলের লংগদুর ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ রাঙ্গামাটির লংগদুর যুবলীগ নেতা নয়ন হত্যাকান্ডের জের ধরে শুক্রবার সংগঠঠিত হামলায় পাহাড়ীদের তিনটি গ্রাম মানিকজোড়ছড়া, বাইট্টা পাড়া ও তিনটিলার ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোঃ নাসিম এর নেতৃত্বে ১৪ দলের এক প্রতিনিধি দল।
পরিদর্শন কালে ১৪ দলের সমন্বয়ক ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোঃ নাসিম বলেন অনতিবিলম্বে যারা নয়নের হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে এবং লংগদুর পাহাড়ীদের বাড়ীঘর যারা আগুনে পুড়িয়েছে তাদের অবশ্যই গ্রেফতার করে শাস্তির বিধান করা হবে। তিনি বলেন, এ দুুর্বৃত্তরা দশ ও জনগনের শত্রু এদের ধর্ম বর্ণ কিছু নেই। এরা পাহাড়ীও না বাঙ্গালীও না এরা সন্ত্রাসী।
এরা জনগনের শত্রু দেশের শত্রু এদের বিচার করে শাস্তির নিশ্চিত করা হবে। তিনি আগুনে ক্ষতিগ্রস্থদের উদ্দেশ্যে বলেন যে সকল পাহাড়ীদের বাড়ীঘরে আগুন দেয়া হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে তাদের ঘরবাড়ী নির্মাণ করা হবে। তাদেরকে চিরস্থায়ী ভাবে পুনর্বাসন করা হবে বলেও প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করে বলেন, সকলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে যাতে এই ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি করা না হয়। তিনি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখার জন্য পাহাড়ী বাঙ্গালী সকলের প্রতি আহবান জানান।
স্বাস্থ্য মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম আরো বলেন, আমি মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর পক্ষ থেকে সন্ত্রাসী কর্তৃক নিহত নুরুল ইসলাম নয়নের বাড়িতে গিয়েছি। তাদের পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা প্রকাশ করেছি। যে সকল সন্ত্রাসীরা এই হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে তাদের কোন ক্ষমা নাই। তারা জাত, ধর্ম ও বর্ণ হীন। তারা অবস্যই সন্ত্রাসী। নয়নের পরিবারকে পুনর্বাসন করা হবে। এছাড়া পরিবারে সদস্যদের উন্নয়নের জন্য যতরকমের সহযোগিতার প্রয়োজন স্থানীয় নেতা দীপংকর তার দায়িত্ব নিবেন।
গতকাল বুধবার দুপুরে রাঙ্গামাটির লংগদু উপজেলায় নয়ন হত্যাকান্ডের ঘটনায় সংগঠিত অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন কালে ক্ষতিগ্রস্থদের উদ্দেশ্যে এ সব কথা বলেন। এ সময় ১৪ দলেল প্রতিনিধি দলে ফজলে হোসেন বাদশা এমপি, ড. শাহাদাত হোসেন , রেজাউল করিম খান, এজাজ আহম্মেদ, মোহাম্মদ আতা উল্লাহ খান উপস্থত ছিলেন।
পরে প্রতিনিধি দল বাইট্যাপাড়ায় মোটর বাইক চালক যুবলীগ নেতা নিহত নয়নের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করেন এবং সমবেদনা জানান।
এ সময় পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর, খাগড়াছড়ির সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, মহিলা সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু, সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ সদস্য দীপংকর তালুকদার, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মানজারুল মান্নান, পুলিশ সুপার সাঈদ তারিকুল হাসান উপস্থিত ছিলেন।
পরে উপজেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। মতবিনিময় সভায় ১৪ দলীয় প্রতিনিধি দল পাহাড়ী বাঙ্গালী উভয় সম্প্রদায়ের বিভিন্ন অভিযোগ শুনেন। এ সময় স্বাস্থ্য মন্ত্রী খুব দ্রুত এই সমস্যা নিরসনে সরকারের পক্ষ থেকে উদ্যোগ নেয়া হবে বলে জানান।
রাঙামাটির জেলা প্রশাসক মানজারুল মান্নানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, ১নম্বর আটারকছড়া ইউপি চেয়ারম্যান মঙ্গল কান্তি চাকমা, আ.লীগ নেতা হাজ্বী ফয়েজুল আজীম বক্তব্য রাখেন।

পড়ে দেখুন

অধিক শস্য ফলনের জন্য বিদ্যুৎ ব্যবহারে সবাইকে সাশ্রয়ী হবার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

॥ ডেস্ক রিপোর্ট ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হবার পাশাপাশি সকলকে সঞ্চয় করার …