শিরোনাম
প্রচ্ছদ / ব্রেকিং নিউজ / পাহাড় ধসে বিধ্বস্ত রাঙ্গামাটির বিদ্যুৎ ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজাতে কাজ করছে বিদ্যুৎ বিভাগ

পাহাড় ধসে বিধ্বস্ত রাঙ্গামাটির বিদ্যুৎ ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজাতে কাজ করছে বিদ্যুৎ বিভাগ

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ রাঙ্গামাটিতে ১৩ জুনের পাহাড় ধ্বসে মাটি চাপায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে রাঙ্গামাটির -হাটহাজারী বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইন বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। এতে ক্ষতি পরিমান সাড়ে ৫ কোটি টাকারও বেশী। পাহাড় ধসে বিধ্বস্ত রাঙ্গামাটির বিদ্যুৎ ব্যবস্থাকে নতুন করে ঢেলে সাজাতে হবে। বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনটি পুন স্থাপণ করতে আরো অনেক সময় লেগে যেতে পারে বলে জানিয়েছে রাঙ্গামাটি বিদ্যুৎ বিভাগ।
সাম্প্রতিক ঘুির্ণঝড় মোরা আর তার পরবর্তী টানা অতিবৃষ্টির ফলে গত ১৩ জুন সকালে রাঙ্গামাটিতে ঘটে যায় স্মরণকালের ভয়বহ পাহাড় ধসের ঘটনা। রাঙ্গামাটির জনবসতি থেকে শুরু করে জনবসতি শূন্য এলাকায় এমন কোন পাহাড় নেই যে কোন পাহাড়ের চুড়া তেকে মাটি ধসে পড়েনি। পাহাড় ধসের ঘটনা মাটি চাপা দিয়ে যেমন ব্যাপক প্রাণহানি ও সম্পদের ক্ষয়ক্ষতি করেছে তেমনি রাঙ্গামাটির জনপদের চিত্রও পাল্টে দিয়েছে। পাহাড় ধ্বসে লন্ডভন্ড হয়ে গেছে রাঙ্গামাটির সড়ক যোগাযোগ আর বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যাবস্থা। রাঙ্গামাটি বিদ্যুৎ বিভাগের টাওয়ার লাইনের প্রায় ২৭ কিলোমিটার বৈদ্যুতিক লাইন পাহাড়ের ধসে পড়া মাটির নীচে চাপা পড়ে সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত হয়ে গেছে।
ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে পাহাড়ের ওপরে স্থাপিত বিদ্যুতের অন্যতম রাঙ্গামাটি- হাটহাজারী বিদ্যুৎ সরবারাহ লাইনের। এ গ্রীড লাইনের ১৫ টি ৩৩ কেভি পোল, ১৪ টি, ৩৩ কেভি টাওয়ার ১৯ টি ট্রান্সফরমার। যদিও দুর্যোগের ৫ দিনের মাথায় রাঙ্গামাটি- চন্দ্রঘোনা বিকল্প বিদ্যুৎ সরবরাহ লাইন থেকে বর্তমানে রাঙ্গামাটিতে বিদ্যুৎ সরবরাহ দেয়া হয়েছে।
রাঙ্গামাটি বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সবুজ কান্তি মজুমদার জানান ,পাহাড় ধসে বিধ্বস্ত রাঙ্গামাটির বিদ্যুৎ ব্যবস্থাকে নতুন করে ঢেলে সাজাতে হবে। তিনি বলেন ১৩ জুন ভুমি ধসে পাহাড় ধসে যে দুযোর্গ পরিস্থিতি এখানে তৈরী হয়েছে এতে করে বিদ্যুতের লাইনের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। রাঙ্গামাটির ৩৩ হাজার কেভির বিদ্যুৎ সরবরাহ লাইনের প্রায় ৩০ টির টাওয়ার ও পোল সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত হয়েছে। এছাড়া ৬ কিলোমিটার মারলিন তার ১০ কিলোমিটার ডক তার মাটির নীচে চাপা পড়েছে। ১২ কিলোমিটার অন্যান্য এলটি লাইনের তার ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। তিনি জানান যেহেতু টাওয়ার লাইনের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে সেহেতু লাইনটি পূণ স্থাপন করতে বেশ কিছু সময় লাগবে। এ জন্য উচ্চ পর্যায়ে একটি কমিটি গঠন করা হযেছে। সে কমিটির মাধ্যমে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেতিনি জানান।
এদিকে পাহাড় ধসে বিদ্যুৎ লাইনের ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার পরও দূর্যোগ পরবর্তীকালে অতি দ্রত সময়ে বিকল্প লাইনের মাধ্রমে পুনরায় বিদ্যুৎ সরবরাহ হওয়ায় রাঙ্গামাটির দুর্যোগ পরিস্থিতি অনেকটা সামাল দেয়া সম্ভব হয়েছে বলে জানান রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মানজারুল মান্নান। জেলা প্রশাসক  বলেন, বর্তমানে যে লাইনে বিদ্যুৎ সরবরাহ হচ্ছে তা নড়বড়ে। জেলায় ক্ষতিগ্রস্থ বিদ্যুৎ লাইনের পুণ স্থাপন করতে যা যা করণীয় সে সব বিষয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনারয়ে অবহিত করা হয়েছে বলে তিনি জানান।
এদিকে পাহাড় ধ্বসের কারণে রাঙ্গামাটির বিদ্যুতের সরবরাহ লাইর্নে যে ক্ষতি হয়েছে তা পুষিয়ে নিতে দীর্ঘ সময় লাগলেও তার স্থায়ী সমাধান চেয়েছে এলাকাবাসী ।

পড়ে দেখুন

চট্টগ্রাম : প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পেল ৫৮৭ পরিবার 

চট্টগ্রাম ব্যুরো :: প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক চট্টগ্রাম জেলায় ভূমিহীন ও গৃহহীন (৩য় পর্যায়) ৫৮৭টি পরিবারকে জমিসহ …