শিরোনাম
প্রচ্ছদ / জাতীয় / রাঙ্গামাটিতে ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ

রাঙ্গামাটিতে ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ

রাঙ্গামাটিতে আওয়ামীলীগ আঞ্চলিক দল গুলোর মাথা ব্যাথা হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় সদস্য দীপংকর তালুকদার। তিনি বলেন, পাহাড়ের উপজাতীয় জনগোষ্ঠী বিএনপি জামায়াত করলে কোন বাধা দেয় না কিন্তু স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তির দল আওয়ামীলীগ করলে তাদের উপর অত্যাচার নিপিড়ণ নেমে আসে। এই ভয়ে আওয়ামীলীগের মিছিল মিটিংএ উপজাতীয় অনেক বড় বড় নেতা যোগ দিতে চাইলেও সাহস করে দিতে পারছে না। তিনি বলেন এই ভাবে ষড়যন্ত্র করে আওয়ামীলীগকে পার্বত্য অঞ্চল থেকে নিশ্চিহ্ন করা যাবে না বলেও তিনি মন্তব্য করেন।  গতকাল ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলার প্রতিবাদে রাঙ্গামাটিতে বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে দীপংকর তালুকদার এ কথা বলেন। রাঙ্গামাটি জেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক মোঃ মুছা মাতব্বরের সঞ্চালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি নিখিল কুমার চাকমা, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মনসুর আলী, মহিলা আওয়ামীলীগ নেত্রী মনোয়ারা জাহান, রাঙ্গামাটি যুবলীগ সভাপতি ও পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী ছাত্রলীগ, কৃষকলীগ সহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা বক্তব্য রাখেন।
দীপংকর তালুকদার আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আওয়ামীলীগের হাজার হাজার নেতাকর্মী স্বাধীনতা যুদ্ধে পাকিস্তানী সেনাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র ধরে দেশকে স্বাধীন করেছে। সেই আওয়ামীলীগকে অস্ত্রের ভয় দেখালে আওয়ামীলীগ ভয় পাবে সেটা ভাবা বোকামি। আওয়ামীলীগকে কখনোই অস্ত্র দিয়ে ধ্বংস করা যাবে না। আওয়ামীলীগ মানুষের ভালোবাসায় সৃষ্টি একটি সংগঠন। তিনি অস্ত্রধারীদের আহবান জানিয়ে বলেন, অস্ত্র দিয়ে কখনোই শান্তি ফিরিয়ে আনা যায় না। অস্ত্র দিয়ে শুধু অশান্তি সৃষ্টি করা যায়। যারা অস্ত্রবাজী করছেন তারা একদিন বুঝবে তাদের সন্তানরা তাদের প্রশ্ন করবে তখন কোন উত্তর তাদের কাছে থাকবে না। তাই এখনো সময় আছে অস্ত্র ফেলে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসুন। পার্বত্য অঞ্চলের শান্তি ফিরিয়ে আনতে আপনার সহযোগিতা একান্ত প্রয়োজন।
এর আগে রাঙ্গামাটি পৌরসভা প্রাঙ্গন থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল রাঙ্গামাটির প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মুখে এসে শেষ হয়। পরে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মুখে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।রাঙ্গামাটিতে ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক॥ রাঙ্গামাটিতে আওয়ামীলীগ আঞ্চলিক দল গুলোর মাথা ব্যাথা হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় সদস্য দীপংকর তালুকদার। তিনি বলেন, পাহাড়ের উপজাতীয় জনগোষ্ঠী বিএনপি জামায়াত করলে কোন বাধা দেয় না কিন্তু স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তির দল আওয়ামীলীগ করলে তাদের উপর অত্যাচার নিপিড়ণ নেমে আসে। এই ভয়ে আওয়ামীলীগের মিছিল মিটিংএ উপজাতীয় অনেক বড় বড় নেতা যোগ দিতে চাইলেও সাহস করে দিতে পারছে না। তিনি বলেন এই ভাবে ষড়যন্ত্র করে আওয়ামীলীগকে পার্বত্য অঞ্চল থেকে নিশ্চিহ্ন করা যাবে না বলেও তিনি মন্তব্য করেন।  গতকাল ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলার প্রতিবাদে রাঙ্গামাটিতে বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে দীপংকর তালুকদার এ কথা বলেন। রাঙ্গামাটি জেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক মোঃ মুছা মাতব্বরের সঞ্চালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি নিখিল কুমার চাকমা, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মনসুর আলী, মহিলা আওয়ামীলীগ নেত্রী মনোয়ারা জাহান, রাঙ্গামাটি যুবলীগ সভাপতি ও পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী ছাত্রলীগ, কৃষকলীগ সহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা বক্তব্য রাখেন।
দীপংকর তালুকদার আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আওয়ামীলীগের হাজার হাজার নেতাকর্মী স্বাধীনতা যুদ্ধে পাকিস্তানী সেনাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র ধরে দেশকে স্বাধীন করেছে। সেই আওয়ামীলীগকে অস্ত্রের ভয় দেখালে আওয়ামীলীগ ভয় পাবে সেটা ভাবা বোকামি। আওয়ামীলীগকে কখনোই অস্ত্র দিয়ে ধ্বংস করা যাবে না। আওয়ামীলীগ মানুষের ভালোবাসায় সৃষ্টি একটি সংগঠন। তিনি অস্ত্রধারীদের আহবান জানিয়ে বলেন, অস্ত্র দিয়ে কখনোই শান্তি ফিরিয়ে আনা যায় না। অস্ত্র দিয়ে শুধু অশান্তি সৃষ্টি করা যায়। যারা অস্ত্রবাজী করছেন তারা একদিন বুঝবে তাদের সন্তানরা তাদের প্রশ্ন করবে তখন কোন উত্তর তাদের কাছে থাকবে না। তাই এখনো সময় আছে অস্ত্র ফেলে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসুন। পার্বত্য অঞ্চলের শান্তি ফিরিয়ে আনতে আপনার সহযোগিতা একান্ত প্রয়োজন।
এর আগে রাঙ্গামাটি পৌরসভা প্রাঙ্গন থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল রাঙ্গামাটির প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মুখে এসে শেষ হয়। পরে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মুখে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

পড়ে দেখুন

অধিক শস্য ফলনের জন্য বিদ্যুৎ ব্যবহারে সবাইকে সাশ্রয়ী হবার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

॥ ডেস্ক রিপোর্ট ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হবার পাশাপাশি সকলকে সঞ্চয় করার …