শিরোনাম
প্রচ্ছদ / খাগড়াছড়ি / খাগড়াছড়িতে সড়ক অবরোধ প্রত্যাহার : আ,লীগ দুই গ্রুপ ও জনপ্রতিনিধিদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১০

খাগড়াছড়িতে সড়ক অবরোধ প্রত্যাহার : আ,লীগ দুই গ্রুপ ও জনপ্রতিনিধিদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১০

॥ খাগড়াছড়ি সংবাদদাতা ॥ খাগড়াছড়িতে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপ ও জনপ্রতিনিধিরে দুই গ্রুপের দ্বন্দ্বে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে খাগড়াছড়ি। গতকাল মঙ্গলবার সকালে সাংসদ কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার গ্রুপের নেতাকর্মীরা  পানছড়ি ও মাটিরাঙ্গা উপজেলা থেকে গাড়ী বহরে শহরে আসার সময় জাহেদুল আলমের গ্রুপের নেতাকর্মীরা গাড়ী থেকে নামিয়ে চেঙ্গী স্কোয়ারে  মারধর করেছে ।এতে ১০জন নেতাকর্মী আহত হয়েছে বলে দাবী করা হয়। আ.লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক নির্মলেন্দু চৌধুরী বলেন, নেতাকর্মীরা সাংসদ কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার সাথে সৌজন্য সাক্ষাতের জন্য আসছিল পথে হামলার শিকার হওয়া খুবই দুঃখজনক। এদিকে জনপ্রতিনিধির একটি গ্রুপ ১৩ সেপ্টেম্বর জেলা পরিষদের অনিয়ম দুর্নীতির বিরুদ্ধে আন্দোলন করার জন্য সুষম উন্নয়ন ও দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির ঘোষনা করে। এই কমিটির ব্যানারে সোমবার সকাল সন্ধ্য হরতাল ও বৃহস্পতিবার পযর্ন্ত সড়ক অবরোধ কর্মসূচি ঘোষনা করেছে।
অন্যদিকে পুরো জেলার ৫০জন জনপ্রতিনিধির মধ্যে ৩৫জন জনপ্রতিনিধিই  মঙ্গলবার সকালে  প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে সুষম উন্নয়ন  ও দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির ঘোষনায় তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করে নিন্দা জানিয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয় রাষ্ট্র বিরোধী কর্মকান্ড করতে এই সংগঠনের আতœপ্রকাশ । সুষম উন্নয়ন ও দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি মঙ্গলবার থেকে বিলুপ্ত  ঘোষনা ও রাষ্ট্র বিরোধী কর্মসূচি প্রত্যাহার না করলে তারা প্রতিহত করার হুশিয়ারী দেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মানিকছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান,¤্রাগ্য মারমা। সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন মাটিরাঙ্গা পৌর মেয়র সামছুল হক। উত্তপ্ত পরিস্থিতি শান্ত করতে জেলা প্রশাসকের কক্ষে মঙ্গলবার সকালে সুষম উন্নয়ন ও দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সদস্যদের নিয়ে অবরোধ প্রত্যাহার এবং আইন শৃঙ্গখলা স্বাভাবিক রাখতে বৈঠক হয়।
সুষম উন্নয়ন ও দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির আহবায়ক চঞ্চুমনি চাকমা বলেন,আমাদের অভিযোগ তদন্তে তিন সদস্যর প্রতিনিধি কমিটি গঠন এবং দুই সপ্তাহের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন পেশ ও তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাসে  সড়ক অবরোধ প্রত্যাহার করা হয়েছে । জেলা প্রশাসকের জরুরী বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এটিএম কাউছার, পুলিশ সুপার আলী আহম্মদ খান, সহ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীকে আহত করার প্রতিবাদে সাংসদ কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা গ্রুপের লোকজন দুপুরে শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। পুলিশ সুপার আলী আহম্মদ খান জানান, আইন শৃংখলা স্বাভাবিক রাখতে পুরো জেলায় পর্যাপ্ত আইনশৃংখলা বাহিনী জোরদার করা হয়েছে।
এদিকে খাগড়াছড়িতে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা বাতিলের দাবিতে জেলা সুষম উন্নয়ন ও দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির ডাকা তিন দিনের সড়ক অবরোধ প্রথম দিনে প্রত্যাহার করেছে আহ্বানকারীরা। মঙ্গলবার দুপুরে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে অবরোধ আহ্বানকারী ও প্রশাসনের বৈঠকে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ার বিরুদ্ধের সব অভিযোগ তদন্ত করার আশ্বাসের ভিত্তিতে অবরোধ প্রত্যাহার করে নিয়েছে।
উক্ত অভিযোগ তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করেছে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের উপসচিব এএসএম শাহেন রেজা স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। তদন্ত কমিটিতে মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মানিক লাল বণিককে আহ্বায়ক করে উপসচিব কাজী মো: আনোয়ারুল হাকিম ও জ্যেষ্ঠ সহকারী সচিব মকিমা বেগমকে সদস্য করে দুই সপ্তাহের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।
অপরদিকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের বৈঠকে ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক এটিএম কাউছার হোসেন, খাগড়াছড়ি সেনা রিজিয়নের স্টাফ অফিসার মেজর মোহাম্মদ মুজাহিদুল ইসলাম, পুলিশ সুপার আলী আহমদ খান, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য মংক্যচিং চৌধুরী, নির্মলেন্দু চৌধুরী, এম এম জাব্বার, খাগড়াছড়ি পৌরসভার মেয়র রফিকুল আলম, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান চঞ্চুমনি চাকমা, পানছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সর্বোত্তম চাকমাসহ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উক্ত বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য যে, প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের লক্ষ্যে গত ২৫ আগস্ট অনুষ্ঠিত লিখিত পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ার অভিযোগে তা বাতিলের দাবিতে ১৭ সেপ্টেম্বর জেলা পরিষদ ঘেরাও কর্মসূচি দেয় জেলা সুষম উন্নয়ন ও দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি নামে একটি সংগঠন। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি বিঘিœত হওয়ার আশঙ্কায় ঐদিন সকাল ৮টা থেকে ১০ ঘন্টার জন্য পৌর এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করে প্রশাসন। এর প্রতিবাদে ১৮ সেপ্টেম্বর সকাল সন্ধ্যা হরতাল ও ১৯ থেকে ২১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত টানা তিন দিনের সড়ক অবরোধের ডাক দিয়েছিল এই সংগঠনটি।
খাগড়াছড়িতে সুষম উন্নয়ন ও দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির অবরোধ চলাকালে পিকেটারদের হাতে সাংবাদিক লাঞ্ছনাসহ সম্প্রতি সময়ে বিভিন্ন স্থানে সাংবাদিকদের লাঞ্ছনার ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন খাগড়াছড়ির সাংবাদিক নেতৃবৃন্দরা। মঙ্গলবার বেলা ১টায় খাগড়াছড়ি প্রেস ক্লাব হলরুমে প্রেস ক্লারেব সভাপতি জীতেন বড়ুয়ার সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় খাগড়াছড়ি সাংবাদিক ইউনিয়ন সভাপতি নুরুল আজম, সাধারণ সম্পাদক কানন আচার্য, প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের মুহাম্মদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবু দাউদ, বাংলাভিশনের খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি ও পার্বত্য নিউজের ব্যুরো চীফ এইচ এম প্রফুল্ল বক্তব্য রাখেন। এসময় জেলায় কর্মরত বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।
বক্তারা, মঙ্গলবার সকালে চেঙ্গী স্কোয়ার এলাকায় পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে সাংবাদিককে লাঞ্ছিত করা এবং গতকাল সোমবার হরতাল চলাকালে বিভিন্ন স্থানে সাংবাদিকদের লাঞ্ছিত করার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে অবিলম্বে দোষীদের গ্রেফতারসহ সাংবাদিকদের পেশাগত নিরাপত্তা বিধানের দাবি জানান। এছাড়া সাংবাদিক সমাজকে নিজেদের মাঝে ঐক্য গড়ে তুলতে আহ্বান জানিয়েছেন সাংবাদিক নেতারা।

পড়ে দেখুন

অধিক শস্য ফলনের জন্য বিদ্যুৎ ব্যবহারে সবাইকে সাশ্রয়ী হবার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

॥ ডেস্ক রিপোর্ট ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হবার পাশাপাশি সকলকে সঞ্চয় করার …