শিরোনাম
প্রচ্ছদ / খাগড়াছড়ি / খাগড়াছড়িতে সিরিজ বোমা হামলার ঘটনায় ১৬ জেএমবি সদস্যের বিরুদ্ধে স্বাক্ষ্য গ্রহণ

খাগড়াছড়িতে সিরিজ বোমা হামলার ঘটনায় ১৬ জেএমবি সদস্যের বিরুদ্ধে স্বাক্ষ্য গ্রহণ

॥ খাগড়াছড়ি সংবাদদাতা ॥ খাগড়াছড়িতে সিরিজ বোমা হামলা ঘটনায় নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠন জামায়াতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশ (জেএমবি’র) ১৬ সদস্যদের বিরুদ্ধে মামলার বাদী ও দুই তদন্ত কর্মকর্তাসহ আরো পাঁচ জনের স্বাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়েছে। এ নিয়ে মামলার ৪৪জন স্বাক্ষীর মধ্যে ১৪জনের স্বাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়। মঙ্গলবার (৭ নভেম্বর) দুপুরে খাগড়াছড়ি জেলা ও দায়রা জজের বিশেষ আদালতের বিচারক রত্বেশ্বর ভট্টাচার্যের আদালতে এ স্বাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়। এ সময় ১৬ আসামির মধ্যে জামিনে থাকা তিন আসামিসহ ১৪জন উপস্থিত ছিলেন। আদালত আগামী ১৬ জানুয়ারি আসামিদের জবানবন্দি গ্রহণকারী ম্যাজিস্ট্রেটের স্বাক্ষ্য গ্রহণের দিন ধার্য্য করেছে।
খাগড়াছড়ি জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি বিধান কানুনগো জানান, এ মামলায় বেলাল হোসেন নামের এক আসামি পলাতক ও অপর জনের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন আদালতে বিচার কাজ চলার কারণে খাগড়াছড়ি আদালতে হাজির করা যায়নি। জেএমবি সদস্যদের হাজিরকে খাগড়াছড়ি আদালত পাড়ায় কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।
২০০৫ সালে ১৭ আগষ্ট মাসে সারা দেশের ন্যায় খাগড়াছড়ি আদালত প্রাঙ্গনসহ েেজলা সদরের ৪টি স্থানে বোমা বিস্ফোরন ঘটে। এ ঘটনায় খাগড়াছড়ি জেলার পানছড়ি উপজেলার ফাতেমা নগর এলাকা থেকে জেএমবি’র আঞ্চলিক কমান্ডার আরিফুল ইসলাম ওরফে নাসিরকে আটক করা হলে বেরিয়ে আসে সারা দেশে সিরিজ বোমা হামলার চাঞ্চল্যকর তথ্য।
একে একে ধরা পড়ে শায়খ আব্দুর রহমান ও সিদ্দিকুর রহমার ওরফে বাংলা ভাইসহ জেএমবি’র শীর্ষ নেতারা। ইতিমধ্যে সিরিজ বোমা হামলা মামলার ১৮ আসামির মধ্যে অন্যতম দুই আসামি শায়খ আব্দুর রহমান ও সিদ্দিকুর রহমার ওরফে বাংলা ভাইয়ের ফাঁসির আদেশ কার্যকর করা হয়েছে। জামিনের পর বেলাল হোসেন নামে একজন আসামি পলাতক রয়েছে।

পড়ে দেখুন

অধিক শস্য ফলনের জন্য বিদ্যুৎ ব্যবহারে সবাইকে সাশ্রয়ী হবার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

॥ ডেস্ক রিপোর্ট ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হবার পাশাপাশি সকলকে সঞ্চয় করার …