শিরোনাম
প্রচ্ছদ / জাতীয় / রাঙ্গামাটিতে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিদ্যালয়ের ভূমিসত্ত্ব হস্তান্তর

রাঙ্গামাটিতে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিদ্যালয়ের ভূমিসত্ত্ব হস্তান্তর

২০১৮ সালের মধ্যে রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাস নির্মাণ কাজ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যান প্রফেসর আব্দুল মান্নান।
শনিবার (৪ নভেম্বর) সকালে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিদ্যালয়ের ভূমিসত্ত্ব হস্তান্তর অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।
এসময় রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয় এর উপাচার্য ও প্রকল্প পরিচালক প্রফেসর ড. প্রদানেন্দু বিকাশ চাকমা, পুলিশ সুপার সাঈদ তারিকুল হাসান, রাঙ্গামাটি পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী, জেলা পরিষদ সাবেক চেয়ারম্যান ড. মানিক লাল দেওয়ানসহ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক ও অন্যান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।
প্রফেসর আব্দুল মান্নান বলেন, রাঙ্গামাটির এই বিশ্ববিদ্যালয় একটি জাতীয় সম্পদ। স্থানীয় অধিবাসীদেরকেই এই সম্পদকে আমানত হিসেবে পরিচর্যা করতে হবে। কারণ এ বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে সবার আগে উপকৃত হবে পার্বত্যাঞ্চলের মানুষ। তাদের সন্তানরা ঘরে বসে উচ্চ শিক্ষার সুযোগ গ্রহণ করতে পারবে। তাছাড়া শিক্ষার উন্নয়ন হলে, এলাকারও উন্নয়ন হবে। আগামী দিনে রাঙ্গামাটির এই বিশ্ববিদ্যালয় বিশ্বের একটি উচ্চমানের বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন প্রফেসর আব্দুল মান্নান। তিনি পার্বত্য চট্টগ্রামের অধিবাসীদের সকল ভেদাভেদ ও মতপার্থক্য ভুলে এই বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার কাজে সহযোগিতা প্রদানের আহবান জানান।
বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যান প্রফেসর আব্দুল মান্নান আরো বলেন, সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্ঠায় এই রাঙ্গামাটিতে একটি ভালো মানের বিশ্ববিদ্যালয় হবে যেখানে শুধু স্থানীয় ছেলেমেয়েরা পড়তে আসবে না, বিদেশী অনেক গবেষক আসবেন। কারণ রাঙ্গামাটিতে রয়েছে অনেক বৈচিত্র্য। বাংলাদেশের আর কোথাও কিন্তু নেই। এই বৈচিত্র্যগুলো নিয়ে গবেষণা করতে আসবেন এবং রাঙ্গামাটির যে অর্জন ও প্রাকৃতিক যে সম্পদ আছে সেই খবরগুলো বিশে^র গবেষকদের কাছে তুলে দেবেন।
তিনি ২০১৯ সনের শেষ নাগাদ বিশ^বিদ্যালয়ের নিজস্ব জায়গায় কিছু কার্যক্রম শুরুর ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এছাড়াও তিনি বিশ^বিদ্যালয়ের জন্য যারা জমি ছেড়েছেন তাদেরকে ধন্যবাদ জানান কারণ তারাও এই বিশ^বিদ্যালয়ের একজন অংশীদার।
অনুষ্ঠানে রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয় (রাবিপ্রবি) এর উপাচার্য ও প্রকল্প পরিচালক প্রফেসর ড. প্রদানেন্দু বিকাশ চাকমা বলেন, রাবিপ্রবি স্থাপন প্রকল্পের জন্য এই বছরের ডিসেম্বর এর মধ্যে ডিজিটাল সমীক্ষা এবং এর পরবর্তীতে মাস্টারপ্ল্যান করার আশা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, আগামী বছর জুন, ২০১৮ এর মধ্যে কোন একটা স্থাপনা তৈরি করতে চাই বিশেষ করে একাডেমিক ভবন, যাতে আমরা বিশ^বিদ্যালয়ের নিজস্ব জায়গায় ক্লাশ শুরু করতে পারি। আমাদের একান্ত প্রচেষ্টা থাকবে এবং এখানে বসবাসরত সকল মানুষের সহযোগিতা কামনা করেন।
রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক মানজারুল মান্নান রাঙ্গামাটির ১০৪নং ঝগড়াবিল মৌজায় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য অধিগ্রহনকৃত প্রায় ৬৪ একর ভূমির দখল বিশ্ববিদ্যালয়ের মঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যানের নিকট হস্তান্তর করেন।
পরে সন্ধ্যা ৭টায় রাঙ্গামাটি পর্যটন হলিডে কমপ্লেক্সে রাবিপ্রবি কর্তৃক আয়োজিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যান প্রফেসর আব্দুল মান্নান যোগদান করেন এবং উক্ত অনুষ্ঠানে রাঙ্গামাটির গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাথে সাক্ষাৎ করেন।

পড়ে দেখুন

চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) দ্বি–বার্ষিক নির্বাচনের ফলাফল আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা

চট্টগ্রাম ব্যুরো :: ঐতিহ্যবাহী চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) দ্বি–বার্ষিক নির্বাচনের ফলাফল আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করেছেন সিইউজে …