শিরোনাম
প্রচ্ছদ / গণমাধ্যম / রাঙ্গামাটির নানিয়ারচরে সন্ত্রাসীদের ধরতে যৌথ বাহিনীর সাড়াঁশি অভিযান চলছে

রাঙ্গামাটির নানিয়ারচরে সন্ত্রাসীদের ধরতে যৌথ বাহিনীর সাড়াঁশি অভিযান চলছে

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ নানিয়ারচরের ঘটনাস্থল পরিদর্শনে চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি এস,এম মনিরুজ্জামানসহ উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা নানিয়ারচরের বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের বলেন, পাহাড়ের শান্ত পরিবেশকে যারা অশান্ত করতে চান তারাই এই হত্যাকান্ড সংঘটিত করেছে। এখানে রক্ত ঝড়িয়েছে। এখানে আমাদের পরিস্কার কথা, যারা এখানে পাহাড়ী নিরিহ জনসাধারণকে শান্তিতে থাকতে দিতে চাচ্ছে না, আমরাও তাদেরকে শান্তি থাকতে দেবনা। যে কোন মূল্যেই আমরা সন্ত্রাসীদেরকে চিহ্নিত করবো।
তিনি আরো বলেন, ইতিমধ্যে আমাদের কাছে আমাদের তদন্ত কার্যক্রম অনেকদুর এগিয়েছে। এদেরকে সমুলে উৎখাত না করা পর্যন্ত, এদেরকে গ্রেফতার পূর্বক এদের বিরুদ্ধে কঠোরতম আনানুগ ব্যবস্থা আমরা গ্রহন করবো। আমরা বদ্ধ পরিকর। এই বিষয়ে আমাদের কোন প্রকার বিধা কোন প্রকার ধন্যতা কোন প্রকার কাপন্যতা কোন প্রকার শীতলতা প্রদর্শন করবো না।
আমি আশা করি, পার্বত্য অঞ্চলে জনগোষ্ঠি যারা আছে তাদের জন্য শুরু আশ্বস্থি নয়, আমরা তাদের পাশে আছি এবং সরকারের পক্ষ থেকে এখানে কঠোর নিদের্শ রয়েছে যে, আর এক ফোটা রক্ত যদি মাটিতে ঝড়ে সেখানে আমরা তাদের অত্যন্ত কঠোর ভাবে আমরা দমন করবো।
এদিকে, রাঙ্গামাটির নানিয়ারচরে উপজেলা চেয়ারম্যান শক্তিমান চাকমা ও গণতান্ত্রিক ইউপিডিএফের ৫ নেতাকর্মী হত্যাকান্ডের পর হামলায় জড়িতদের গ্রেফতার করতে বিভিন্ন স্থানে যৌথ বাহিনীর সাড়াঁশি অভিযান চালাচ্ছে। নানিয়ারচরের পর পর দুটি হত্যাকান্ডের ঘটনার পর সর্বত্র আতংক বিরাজ করছে। নানিয়ারচরের একমাত্র সড়ক পথ রাঙ্গামাটি মহালছড়ি খাগড়াছড়ি সড়কে ভাড়ী যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। নানিয়ারচরে সেনা ও পুলিশের টহল বাড়ানো হয়েছে।
বর্তমানে নানিয়ারচরের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। বিভিন্ন স্থানে অতিরিক্ত পুলিশ ও সেনাবাহিনী টহল দিচ্ছে। দোকানপাট খোলা থাকলেও মানুষ প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হচ্ছে না।
অন্যদিকে, নানিয়ারচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল লতিফ জানিয়েছেন, বর্তমানে নানিয়ারচরের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। বিভিন্ন স্থানে অতিরিক্ত পুলিশ ও সেনা বাহিনী টহল দিচ্ছে। তিনি জানান, উপজেলা চেয়ারম্যান ও ৫ জনের হত্যাকান্ডের মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।
উল্লেখ্য, শুক্রবার (৪ মে) দুপুরে রাঙ্গামাটির নানিয়ারচরের বেতছড়ির কেংক্রাছড়ি নামক স্থানে দুর্বৃত্তদের গুলিবর্ষনে ইউপিডিএফ-গণতান্ত্রিক দলের আহবায়ক তপন জ্যোতি চাকমা ওরফে বর্মাসহ ৫ জন নিহত ও ৮জন আহত হয়েছিলো। এরা সকলেই বৃহস্পতিবার দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত নানিয়ারচর উপজেলা চেয়ারম্যান এড. শক্তিমান চাকমার দাহক্রিয়া অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাচ্ছিলেন।

পড়ে দেখুন

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

॥ ডেস্ক রিপোর্ট ॥ অমর একুশে ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ঐতিহাসিক ভাষা আন্দোলনের শহীদদের …