শিরোনাম
প্রচ্ছদ / খাগড়াছড়ি / স্বনির্ভর বাজারে আতংক, দোকান পাট বন্ধ : খাগড়াছড়িতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত-৬, আহত-৩

স্বনির্ভর বাজারে আতংক, দোকান পাট বন্ধ : খাগড়াছড়িতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত-৬, আহত-৩

॥ আবু তৈয়ব, খাগড়াছড়ি ॥ খাগড়াছড়িতে ৬ জনকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার (১৮ আগষ্ট) সকাল সাড়ে ৮টার দিকে খাগড়াছড়ি জেলা সদরের স্বনির্ভর এলাকায় এ হত্যাকান্ড ঘটে। এ ঘটনায় ৩জন আহত হয়েছে। আহত ৩ জনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে আশংকাজনক অবস্থা পুলিশ পাহারায় পাঠানো হয়েছে। তবে হতাহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এই ঘটনায় খাগড়াছড়ি শহরে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে।
জানা গেছে,গ্রামবাসীদের নিয়ে ইউপিডিএফ সকালে একটি সমাবেশ ও বিক্ষোভ করার কথা ছিল। সেই সমাবেশ ও বিক্ষোভে মিলিত হওয়ার আগেই এই ঘটনা ঘটায় দুর্বৃত্তরা।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আনুমানিক সকাল সাড়ে ৮টার দিকে শহরের অদূরে স্বনির্ভর বাজার ও আশপাশ এলাকায় আকস্মিকভাবে অস্ত্রধারী দুর্বৃত্তরা ব্রাশফায়ার করলে ঘটনাস্থলেই ৬ জন নিহত ও আরো ৩ জন আহত হয়। এসময় স্বনির্ভর বাজারে অবস্থিত পুলিশ বক্সেও গুলি লাগে। নিহতদের মধ্যে অধিকাংশই ইউপিডিএফ সমর্থক নেতা ও কর্মী বলে জানা গেছে। পুলিশ হতাহতদের উদ্ধার করে খাগড়াছড়ি হাসপাতালে নিয়ে আসলে আহত ৩ জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রামে প্রেরণ করা হয়েছে।
খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. নয়নময় ত্রিপুরা বলেন, হাসপাতালে ভর্তি আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তবে কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাদের উন্নয়ন চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রামে পাঠানো হয়েছে।
ইউপিডিএফ এর জেলা সমন্বয়কারি মাইকেল চাকমা ঘটনার জন্য সংস্কারপন্থী জনসংহতি সমিতিকে দায়ী করেছে। অবশ্য জনসংহতি সমিতি অভিযোগ অস্বীকার করেছে।
নিহতদের মধ্যে তপন চাকমা, এলটন চাকমা, জিতায়ন চাকমার (স্বাস্থ্য সহাকরী), অনুপম চাকমা, পলাশ চাকমার নাম পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে তপন চাকমা ইউপিডিএফ সমর্থিত পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের জেলার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এবং জিতায়ন চাকমা মহালছড়ি উপজেলা সহকারি স্বাস্থ্য পরিদর্শক বলে জানা গেছে। আহতরা হলেন, সমর বিকাশ চাকমা (৪৮), সুকিরন চাকমা (৩৫) ও সোহেল চাকমা (২২)। গুলিবিদ্ধ ৩ জনকে চিকিৎসা দিয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেলে রেফার করা হয়েছে।
খাগড়াছড়ি সদর থানার ওসি সাহাদাত হোসেন টিটো ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। বিপুল পরিমাণ গুলির খোসা দেখা যাচ্ছে। হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া ঘটনায় জড়িতদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানান তিনি। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত খাগড়াছড়ি জেলা শহরে থমথমে অবস্থা বিরাজ করেছে।

পড়ে দেখুন

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

॥ ডেস্ক রিপোর্ট ॥ অমর একুশে ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ঐতিহাসিক ভাষা আন্দোলনের শহীদদের …