শিরোনাম
প্রচ্ছদ / গণমাধ্যম / রাঙ্গামাটির রাজস্থলীতে বিদ্যুৎ বিভাগের নতুন সম্প্রসারিত ১১ হাজার কেবি বিদ্যুৎ লাইন উদ্বোধন

রাঙ্গামাটির রাজস্থলীতে বিদ্যুৎ বিভাগের নতুন সম্প্রসারিত ১১ হাজার কেবি বিদ্যুৎ লাইন উদ্বোধন

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ পাহাড়ের একটি ঘরও বিদ্যুৎ বিহীন থাকবে না বলে মন্তব্য করেছেন রাঙ্গামাটির সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার এমপি। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী পাহাড়কে আলোকিত করতে ৫শ কোটি টাকাসহ সোলার বরাদ্দ দিয়েছে আগামীতে পাহাড়ের প্রতিটি ঘরে ঘরে মানুষ বিদ্যুৎ সুবিধা পাবে।
মঙ্গলবার (২৮ জানুয়ারী) সকালে রাঙ্গামাটির দূর্গম রাজস্থলী বাঙ্গালহালিয়ায় ৫০ লক্ষ টাকা ব্যায়ে কাঁকড়াছড়ি ও শফিপুর এলাকায় বিদ্যুৎ বিভাগের নতুন সম্প্রসারিত ১১ হাজার কেবি বিদ্যুৎ লাইন উদ্বোধন কালে তিনি এসব কথা বলেন।
এসময় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান উবাচ মারমা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ ছাদেক, রাঙ্গামাটি বিদ্যুৎ বিভাগের সহকারী প্রকৌশলী এ,আর মুজিব, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান অংনুচিং মারমা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান উসচিন মারমা, সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান উথিনসিন মারমা, রাঙ্গামাটি জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন রুবেল, ইউপি চেয়ারম্যান ঞোমং মারমা, ঠিকাদার দান বীর চাকমাসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এসময় রাঙ্গামাটি সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার আরো বলেন, আমাদেরকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছিলেন বলেই আমরা আজকে আপনাদের সেবা করার সুযোগ পাচ্ছি। আর সুযোগ পেয়েছি বলেই আজকে এই উন্নয়ন আমরা করতে পারছি এবং এর ফলে মানুষ গ্রামে বসে কাজ করার সুযোগ পাচ্ছে। কেউ যদি কাজ করে খেতে চায় সে সুযোগটা তারা পাচ্ছে সেই সুযোগটা আমরা সৃষ্টি করেছি এবং সেটা একেবারে তৃণমূল পর্যায়েই আমরা করে দিচ্ছি।
এ সময় বিদ্যুৎ ব্যবহারে সবাইকে সাশ্রয়ী হবার পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, বিদ্যুৎ উৎপাদনে যে ব্যয় হয় তার চেয়ে অনেক কম দামে আমরা বিদ্যুৎ দিচ্ছি। তাই সবাইকে এই বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হতে হবে। বিদ্যুতের যেন কোন অপচয় না হয়। আমরা চাই প্রতিটি গ্রামে গ্রামে দূর্গম পার্বত্য এলাকায় শতভাগ মানুষের ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিতে।

পড়ে দেখুন

“চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিবেশ রক্ষা” পরিষদের নিয়মিত মাসিক সভা অনুষ্ঠিত

“চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিবেশ রক্ষা” পরিষদের নিয়মিত মাসিক সভায় সম্মানিত সভাপতি আলহাজ¦ আবুল কালাম আজাদ এর …