শিরোনাম
প্রচ্ছদ / চট্টগ্রাম / চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের অভিযান :: ১৪ প্রতিষ্টানকে ১ লাখ ১৫ হাজার টাকা জরিমানা

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের অভিযান :: ১৪ প্রতিষ্টানকে ১ লাখ ১৫ হাজার টাকা জরিমানা

দেশে পর্যাপ্ত পরিমানে খাদ্য সামগ্রী মজুদ থাকা সত্বেও করোনা ভাইরাসের কারণে সাধারণ ভোক্তারা আতংকিত হয়ে প্রয়োজনের তুলনায় অতিরিক্ত নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রী ক্রয় করছে। আর এ সুযোগে এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ীরা চাল, ডাল পিঁয়াজ, তেল, আদা, রসুনসহ বিভিন্ন পণ্যের মুল্য বৃদ্ধি করে দেয়ায় জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে উঠেছে। নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের বাজার যাতে অস্থিতিশীল হয়ে উঠতে না পারে সে লক্ষ্যে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেনের নির্দেশে বাজার মূল্য নিয়ন্ত্রনে মাঠে নেমেছে জেলা প্রশাসনের ৪টি ভ্রাম্যমান আদালত টিম। চান্দগাঁও সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভূমি) মামনুন আহমেদ অনিক, কাট্টলী সার্কেলের সহকারী (ভূমি) কমিশনার তৌহিদুল ইসলাম, নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ ওমর ফারুক ও নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট গালিব চৌধুরী আজ ২১ মার্চ ২০২০ ইং শনিবার বিকেলে নগরীর রেয়াজউদ্দিন বাজার, কাজির দেউরী, চাক্তাই, খাতুনগঞ্জ, আগ্রাবাদ চৌমুহনী, পাহাড়তলী বাজার ও ২ নং গেইট কর্ণফুলি কমপ্লেক্সে পৃথক পৃথক অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানে ১৪ টি দোকান/ প্রতিষ্টানকে মোট ১ লাখ ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
আজ ২১ মার্চ শনিবার বিকেল ৪টায় চান্দগাঁও সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভূমি) মামনুন আহমেদ অনিক নগরীর রেয়াজউদ্দিন বাজারে মুদিমাল, চাল, মাংস, কাঁচা তরিতরকারী ও অন্যান্য দোকানে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন। এসময় দোকানে মূল্য তালিকা না টাঙানো, নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে অতিরিক্ত মুল্যে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রী বিক্রি ও পাইকারী বা আড়ৎ থেকে পণ্য সামগ্রী ক্রয়ের রশিদ প্রদর্শন না করার অপরাধে ৫টি দোকানকে ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন ম্যাজিষ্ট্রেট। এগুলো হচ্ছে- মুদি মালের দোকান শিমুল এন্ড ব্রাদার্সকে ১০ হাজার টাকা, ভাই ভাই স্টোরকে ১০ হাজার টাকা, আবছার এন্ড ব্রাদার্সকে ১০ হাজার টাকা, গরু মাংসের দোকানী মোঃ লিটন ও আলী হোসেনকে ৫ হাজার টাকা। এছাড়া একই অভিযানে ৪৬টি নকল লিকুইড সোপ জব্ধ করা হয়। মেট্টোপলিটন পুলিশ মোবাইল কোর্ট অভিযানে সহযোগিতা করেন। বাজারমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখতে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান চান্দগাঁও সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভূমি) মামনুন আহমেদ অনিক (০১৭৩২-৩৫৩৩২৮)।
এছাড়া অপর তিনটি অভিযানে একই অপরাধে নগরীর কাজির দেউরী বাজারের একটি দোকানকে ৫ হাজার টাকা, আগ্রাবাদ চৌমুহনী ও পাহাড়তলী বাজারের ৪টি দোকানকে ৩০ হাজার টাকা ও ২ নং গেইট কর্ণফুলি কমপ্লেক্স মার্কেটের ৪টি দোকানকে ৪৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন তিন ম্যাজিষ্ট্রেট।
কাট্টলী সার্কেলের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট তৌহিদুল ইসলাম (০১৭৪৮-১২১৩০২) জানান, পাইকারী বাজার চাক্তাই-খাতুনগঞ্জ, খুচরা বাজার কাজীর দেউড়ি ও সিডিএ মার্কেটে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য চাল, ডাল, আদা, পেয়াজ, রসুন এর আড়তে অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। এসব আড়তে পণ্যের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে এবং দামও সহনীয় পর্যায়ে রয়েছে। কিন্তু কাজীর দেউড়ি বাজার ও সিডিএ মার্কেটে অভিযান পরিচালনা করতে গিয়ে দেখা যায়, সাধারণ ক্রেতারা করোনা আতঙ্কে অতিরিক্ত পণ্য কিনছে। এ সুযোগ লাগিয়ে খুচরা বিক্রেতারা অধিকা দামে আদা-রসুন, পেয়াজ, চিনি, চাল বিক্রি করছে। সাধারণ ক্রেতারা প্রয়োজনের চেয়ে অধিক পণ্য কিনে নিজেদের ঘরে মজুদ করে সুপারশপে পরিণত করছে। একটি মুদি দোকানে গিয়ে জানা যায়, একজন ক্রেতা নাকি ৪০ কেজি চিনি তার নিজের পরিবারের জন্য একাই কনে নিয়ে গেছেন। পাইকারি বাজারে পণ্যের পর্যাপ্ত মজুদ ও সরবরাহ থাকার পরও সাধারণ ক্রেতা যেভাবে অতিরিক্ত পণ্য কিনছে তা রীতিমতো বাড়াবাড়ি পর্যায়ের। এজন্য প্রতিটি মার্কেট কমিটি, পাইকারি ও খুচরা দোকানকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নায্য দামে পরিমিত পরিমাণে বিক্রির নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। অতিরিক্ত পণ্য কিনে কোনো ক্রেতা বা বিক্রেতা যদি পণ্য মজুদ করে তাহলে সংশ্লিষ্ট অপরাধী ব্যক্তিকে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য মজুদদারির জন্য শাস্তি দেয়া হবে।

পড়ে দেখুন

চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) দ্বি–বার্ষিক নির্বাচনের ফলাফল আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা

চট্টগ্রাম ব্যুরো :: ঐতিহ্যবাহী চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) দ্বি–বার্ষিক নির্বাচনের ফলাফল আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করেছেন সিইউজে …