শিরোনাম
প্রচ্ছদ / চট্টগ্রাম / বান্দরবানে সন্ত্রাসীদের গুলিতে যুবলীগ নেতার মৃত্যু, ময়না তদন্ত শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর,প্রতিবাদে উত্তাল বান্দরবান

বান্দরবানে সন্ত্রাসীদের গুলিতে যুবলীগ নেতার মৃত্যু, ময়না তদন্ত শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর,প্রতিবাদে উত্তাল বান্দরবান

॥বান্দরবান প্রতিনিধি॥ বান্দরবানের বাঘমারায় মঙ্গলবার রাতে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের গুলিতে ইউনিয়ন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মংচিংউ মারমার (৩৮) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, বান্দরবান সদর উপজেলার রাজবিলা ইউনিয়নের চিংক্যউ পাড়ায় অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা গুলি করে মংচিংউ মারমা (৩৮) নামে একজনকে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হত্যা করে। সে জামছড়ি ইউনিয়ন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। এসময় পাড়াবাসীদের মধ্যে ভীতি ছড়াতে আরও কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি করে সন্ত্রাসীরা। এদিকে খবর পেয়ে রাতেই বান্দরবান সদর থেকে পুলিশও সেনাবাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে যায় এবং মৃত মংচিংউ মারমার লাশ উদ্ধার করে বান্দরবান সদর হাসপাতালের মর্গে নিয়ে আসে।
এদিকে ২ সেপ্টেম্বর (বুধবার) সকাল ১১টায় ময়না তদন্ত শেষে নিহত মংচিংউ মারমার লাশ তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ। এসময় বান্দরবান জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ন সম্পাদক লক্ষীপদ দাশ উপস্থিত থেকে পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপির পক্ষ থেকে নিহত মংচিংউ মারমার পরিবারকে নিহতের শেষকৃত্য অনুষ্ঠান সম্পন্ন করার জন্য নগদ ৩০ হাজার টাকা প্রদান করেন। এসময় বান্দরবান জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ন সম্পাদক লক্ষীপদ দাশ বলেন, আমরা চাই এই ঘটনার সুষ্ট বিচার। যারা হত্যা গুমের রাজনীতি করে পাহাড়ে অশান্তি বিরাজ করছে তাদের যথাযথ শাস্তি প্রদানই আমাদের এখনকার সময়ের দাবি।
পুলিশ জানায় ঘটনায় পরপরই ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে এবং লাশের ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। পুলিশ আরো জানায় এই ঘটনায় এখনো কোন মামলা হয়নি। বান্দরবান সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.শহিদুল ইসলাম চৌধুরী জানান, এই হত্যাকান্ডের কারণ অনুসন্ধান ও ঘটনায় জড়িতদের ধরতে আমাদের পুলিশের কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে, ওসি আরো বলেন, নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়ের হলেই আমরা পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।
অপরদিকে দুপুর ১২টায় বান্দরবান বঙ্গবন্ধু মুক্তমঞ্চে জেলা যুবলীগের আয়োজনে এক বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসময় জেলা আওয়ামীলীগ, জেলা যুবলীগসহ এর অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন। সভায় বক্তারা এই হত্যাকান্ডের তীব্র প্রতিবাদ জানান এবং অবিলম্বে দোষীদের গ্রেফতার করে যথাযথ শাস্তি প্রদানের জন্য প্রশাসনের কাছে আবেদন জানান। বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশে জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মো.আব্দুর রহিম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ইসলাম বেবী, জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ন সম্পাদক লক্ষীপদ দাশ, জেলা যুবলীগ এর আহবায়ক কেলুমং মারমা, স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মো.সাদেক হোসেন চৌধুরীসহ দলীয় নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে গত ৭জুলাই বান্দরবানের বাঘমায়ায় দুর্বৃত্তদের গুলিতে জনসংহতি সমিতির সংস্কারপন্থী (এমএন লারমা) গ্রুপের বান্দরবান জেলা সভাপতিসহ ৬জনকে গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা, এসময় গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয় আরো তিনজন। আর দিন দিন বাঘমারা এলাকায় হত্যাকান্ড বেড়ে যাওয়ায় স্থানীয় বাসিন্দাদের মাঝে আতংক বিরাজ করছে।

পড়ে দেখুন

“চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিবেশ রক্ষা” পরিষদের নিয়মিত মাসিক সভা অনুষ্ঠিত

“চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিবেশ রক্ষা” পরিষদের নিয়মিত মাসিক সভায় সম্মানিত সভাপতি আলহাজ¦ আবুল কালাম আজাদ এর …