শিরোনাম
প্রচ্ছদ / বান্দরবান / যথাযোগ্য মর্যাদায় বান্দরবানে একুশে ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্র্জাতিক মার্তৃভাষা দিবস উদযাপন

যথাযোগ্য মর্যাদায় বান্দরবানে একুশে ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্র্জাতিক মার্তৃভাষা দিবস উদযাপন

॥ বান্দরবান প্রতিনিধি ॥ বর্ণাঢ্য কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে বান্দরবানে পালিত হচ্ছে অমর একুশে। একুশের প্রথম প্রহরে বান্দরবানের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন সকল শ্রেণী পেশার মানুষ।
রাত ১২.০১ মিনিটে বান্দরবান কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রথম ফুল দিয়ে শহীদদের শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন ৩০০নং সংসদীয় বান্দরবান আসনের সংসদ সদস্য বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি। এরপর জেলা প্রশাসক শাহ্ মোজাহিদ উদ্দিন, পুলিশ সুপার সৈকত শাহীন, পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা, পৌরসভার মেয়র মো.সামসুল ইসলাম শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শহীদদের শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। এরপরে পর্যায়ক্রমে বান্দরবানের সিভিল সার্জন কার্যালয়, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড, রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সরকারি বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থার পক্ষ থেকে ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে জনতার ঢল নামে শহীদ মিনার এলাকায়। এসময় সকলের কন্ঠে ধ্বনিত হয় আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারী আমি কি ভুলিতে পারি। এদিকে ভোরের সুর্য উদয়ের সাথে সাথে প্রভাত ফেরির র‌্যালি শুরু হয়। প্রভাত ফেরির র‌্যালিতে বিভিন্ন সরকারী বেসরকারি কার্যালয় ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা অংশ নেয় এবং বান্দরবানের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গিয়ে ভাষার জন্য প্রাণ দেওয়া শহীদদের ফুল দিয়ে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করে অসংখ্য জনতা।
এছাড়াও মহান ২১ফেব্রুয়ারি শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে সুন্দর হাতে লিখা, কবিতা আবৃত্তি, চিত্রাংকণ প্রতিযোগিতা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং আলোচনা সভাসহ বিভিন্ন কার্যক্রম সম্পন্ন হচ্ছে।

পড়ে দেখুন

বান্দরবানের তুমব্রু থেকে আরো ১টি অবিস্ফোরিত রকেট লাঞ্চার উদ্ধার করেছে বিজিবি

॥ নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি ॥ বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম ইউনিয়নের তুমব্রু-ঘুমধুম মিয়ানমার সীমান্তে বসবাসকারী রয়েছে ৩০ হাজার …